সোমবার, অক্টোবর ১৮, ২০২১ : ১:২৪ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

বিশ্বনাথ-বালাগঞ্জবাসী শফিক চৌধুরীকে নিয়ে মন্ত্রীত্বের স্বপ্ন দেখছেন

আর সবার চেয়ে তিনি ব্যতিক্রম। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আর জনসেবায় নিবেদিত এক উজ্জল নক্ষত্র তিনি। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়নে কাজ করতে ত্যাগ করেছেন প্রবাসের বিলাসী জীবন। দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে সকাল থেকে গভীর রাত ছুটে বেড়িয়েছেন প্রত্যন্ত অঞ্চলে। জনপ্রতিনিধি হিসেবে এলাকার উন্নয়ন আর মানুষের সেবা করাকে এগিয়ে রেখেছেন সবকিছুর উর্ধ্বে।  আবার দলের প্রয়োজনে যেকোনো নির্দেশ পালন করেছেন যথাযথভাবে। তিনি মুজিব আদর্শ আর জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বাসী সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট-২ আসনের সাবেক সাংসদ শফিকুর রহমান চৌধুরী।বর্তমানে জনপ্রতিনিধি না হয়েও কর্মদক্ষতায় তিনি এখনই সাধারণ মানুষের কাছে এমপির আসনেই অধিষ্ঠিত রয়েছেন। আর তাকে নিয়ে আবারো নতুন স্বপ্ন দেখছেন সিলেট-২ নির্বাচনী এলাকার জনসাধারণ। একই আশায় বুক বেঁধেছেন আওয়ামী লীগের দলীয় নেতাকর্মীরা। আওয়ামী লীগের নিবেদিতপ্রাণ এই ব্যক্তিকে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চান তারা।২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শফিকুর রহমান চৌধুরী প্রথম ব্যক্তি যিনি সিলেট-২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীদের মধ্যে লক্ষাধিক ভোট পান এবং এমপি নির্বাচিত হন। এর পূর্বে এ আসনে

সিলেট ভিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম: আওয়ামী লীগের আর কোন প্রার্থী লক্ষাধিক ভোট পাননি। নির্বাচনে শফিকুর রহমান চৌধুরী বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও হেভিওয়েট প্রার্থী এম. ইলিয়াস আলীকে পরাজিত করেছিলেন।২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মেনে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে শফিকুর রহমান চৌধুরী জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইয়াহ্ইয়া চৌধুরী এহিয়ার পক্ষে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে কাজ করেন। এহিয়া চৌধুরীকে বিজয়ী করতে এলাকায় উদারতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন তিনি।জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ইতিমধ্যে দক্ষতার সাথে একের পর এক উপজেলার সম্মেলন সম্পন্ন করতে শফিক চৌধুরীর ভ‚মিকা প্রশংসনীয় হয়েছে জেলা ও উপজেলাগুলোর তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছে। এ কারণেই দীর্ঘদিন ধরে তাকে মন্ত্রী হিসেবে দেখার দাবি উত্থাপিত হয়ে আসছে বিভিন্ন উপজেলার সাধারণ মানুষ ও দলীয় নেতাকর্মীদের কাছ থেকে। বিলবোর্ড-ব্যানারের পাশাপাশি ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চেয়ে চলছে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা।সম্প্রতি সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর মৃত্যুতে মন্ত্রী পরিষদে সৃষ্ঠ হওয়া শূন্য পদে সততা, যোগ্যতা, দক্ষতা, পরিশ্রম ও ত্যাগের ফসল হিসেবে একজন পরিছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে শফিক চৌধুরীকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী কিংবা অন্য কোন মন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হবে এমনটি আশা করছেন বিশ্বনাথ, বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলাবাসীসহ সিলেটের বিভিন্ন উপজেলা ও যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্রসহ বিলাত প্রবাসীরা।সাধারণ মানুষের ওই দাবির প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি শফিকুর রহমান চৌধুরীকে মন্ত্রী করেন তবে তিনিই হবেন বিশ্বনাথী হিসেবে প্রথম কোন মন্ত্রী। আর প্রতিমন্ত্রী হলে হবেন দ্বিতীয়। এরপূর্বে ১৯৭৯ সালে অনুষ্ঠিত ২য় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে এমপি নির্বাচিত হয়ে ‘রেল ও যোগাযোগ’ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে ছিলেন মরমী গানের অমর ¯্রষ্টা হাছন রাজার নাতি দেওয়ান তৈমুর রাজা। তবে অতীতে এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে শফিকুর রহমান চৌধুরীসহ ৪ জন এমপি নির্বাচিত হলেও তাঁদের কেউই মন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করার সুযোগ পাননি।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বেতন স্কেল ১০ গ্রেডে উন্নীতকরণের দাবি প্রধান শিক্ষকদের

ডেস্ক রিপোর্ট :: দ্বিতীয় শ্রেণির গেজেটেড (নন-ক্যাডার) প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন উভয় প্রধান শিক্ষকদের প্রবেশ পদে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open