সোমবার, মে ১৭, ২০২১ : ১২:৪৫ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

যে দেশের সুন্দরীরা প্রেমের ফাঁদে ফেলতে পটু

প্রেমের ফাঁদ ফেলে স্বর্বস্ব কেড়ে নিতে পটু ইন্দো-কন্যারা। এরপরও আবার স্বপ্ন গড়ার গল্প দেখেন বাংলাদেশি ছেলেরা। হয়তো সেটা কখনও হয় দুঃস্বপ্ন! স্বপ্নের মালয়েশিয়ার বাস্তব চিত্রটা প্রবাসীদের কাছে বড়ই নিষ্ঠুর।

মালয়েশিয়ার রাস্তায় স্বপ্ন ওড়ানো প্রবাসীদের জীবনের ডায়রির পাতা উল্টিয়ে দেখা যায়, যে ছেলেটি দেশে কখনও কোনো ধরনের কাজ করেনি, এখন সে মালয়েশিয়ার রাস্তায় ঝাড়ুদারের কাজ করে।

নিয়তির খেলাকে ভাগ্য মনে করে কাজ করে সে। কারণ স্বপ্নের দেশে পাড়ি জমাতে এক গাদা সুদের টাকা জমিয়ে এসেছে সে, সঙ্গে ‘বন্ধক’ দিয়ে এসেছে মা-বাবার সুখ-শান্তিও।

যেকোনো উপায়ে মা-বাবার মুখের হাসি ফেরাতে হবে। সুদের টাকা শোধ করতে হবে। ফেরাতে হবে মহাজনের রক্তচক্ষু। কেউ হয়তো এই সংগ্রামী জীবনে টিকে থাকে, আবার কেউ থেমে যায় মাঝপথেই। স্বপ্নের দেশে এসে স্বপ্নের পুঁজি জীবনটাকেই শেষ করে দেয় কেউ কেউ।

অনেকেই মালয়েশিয়ায় থেকে যাচ্ছেন বছরের পর বছর। এমনও নজির আছে, ২০ বছর মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন কিন্তু একবারের জন্যও দেশে ফেরেননি। দেখতে যাননি জন্মদাতা মা-বাবার মুখ।

এরা মালয়েশিয়ায় বিয়ে করে ব্যবসা-বাণিজ্য করছেন। দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছেন। এদের পাঠানো রেমিটেন্সে ঘুরছে বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকা।

অনেকেই আছেন, যারা স্বপ্ন বুনতে এসে অন্যের স্বপ্ন বোনার ‘বলি’ হয়ে যান। ইন্দো-কন্যাদের ফাঁদে পড়ে হয়ে যান নিঃস্ব।

মালয়েশিয়ায় ইন্দোনেশিয়ান, ভিয়েতনাম বারমিজ, ফিলিপিনো, ইন্ডিয়ান, থাইসহ অনেক দেশের মেয়েদের বসবাস। ছেলেদের মতো ব্যবসা-বাণিজ্যেও এখানে চাইনিজ মেয়েরা অনেকটা এগিয়ে।

ব্যবসা বাণিজ্যের মতো পোশাক-পরিচ্ছদেও খানিকটা এগিয়ে চাইনিজ মেয়েরা। অবশ্য এরা সংক্ষিপ্ত জামা পরলেও প্রতারণা-ধোঁকাবাজি বোঝে না।

চাইনিজ মেয়েরা সাধারণত চাইনিজ ছেলেদের সঙ্গেই প্রেম করে। ভারতীয়দের মতো এখানকার ফিলিপিনো মেয়েরাও খানিকটা সংগ্রামী। তবে এদের পছেন্দের তালিকার শীর্ষে বাংলাদেশি ছেলে।

ফিলিপিনো ক্যাটলিক মরিয়াম বলেন, বাংলাদেশি ছেলেরা অনেক স্মার্ট ও কঠোর পরিশ্রমী। তারা স্ত্রীদের দেখাশোনা করে। তাদের ধর্মের সঙ্গে মুসলিম ধর্মের অনেক মিল আছে। বাংলাদেশিদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে তেমন একটা বাধা থাকে না। স্ত্রীদের তারা কোথাও কাজ করতে দেয় না।

দেশটির স্থানীয় ছেলেদের আলস্যের কারণে বাংলাদেশিদের প্রতি তাদের দুর্বলতা বাড়তে থাকে।

২০০৭ সালের পর থেকে বাংলাদেশিদের বিয়ের ওপর কড়াকড়ি  আরোপ করেছে। কিছু ব্যক্তির প্রতারণার কারণে বাংলাদেশিদের ওপর থেকে মালয়েশিয়ান মেয়েদের শ্রদ্ধা, ভক্তি ও বিশ্বাস উঠে গেছে।

বাংলাদেশি ছেলেদের প্রতি আগ্রহ ইন্দোনেশিয়ান মেয়েদের। মালয়েশিয়ায় ইন্দোনেশিয়ানদের আগমনের পথ অনেক সহজ প্রতিবেশী হওয়ার কারণে। ইন্দো মেয়েরা অনেক বেশি কর্মঠ।

মালয়েশিয়াতে বেশির ভাগ বাংলাদেশি ছেলের বান্ধবী ইন্দোনেশিয়ান। পেনাং, জোহর বারু, কেদাহ প্রদেশের শিল্প কারখানাগুলোতে হাজারো বাংলাদেশি ও ইন্দোনেশিয়ান কাজ করে।

এদিকে ইন্দো মেয়ের প্রেমের ফাঁদে পড়ে হাজারো বাংলাদেশি ছেলের পকেট ফাঁকা হয়ে গেছে। ইন্দো মেয়েরা সাধারণত থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করে দিলে যেকোনো বাংলাদেশি ছেলের সঙ্গে একত্রে বসবাস করে থাকে। আর ভরণ-পোষণের অর্থ ফুরিয়ে গেলে অন্যজনের সঙ্গে চলে যেতেও একটুও দ্বিধা করে না।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

চীনে টর্নেডো-শিলাবৃষ্টিতে ৯৮ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চীনের পূর্বাঞ্চলীয় জিয়াংসু প্রদেশে টর্নেডো ও শিলাবৃষ্টির আঘাতে কমপক্ষে ৯৮ জনের মৃত্যু …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open