সোমবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২১ : ১০:৫৬ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

সিসিকের সভায় নারী কাউন্সিলরদের কটূক্তি : হট্টগোল বর্জন প্রতিবাদ

1স্টাফ রিপোর্টার :: সিলেট সিটি করপোরেশনের সাধারণ সভায় সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরদের দাবিদাওয়ার কোনো তোয়াক্কা করা হয় না বলে অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট সিটি করপোরেশনের মাসিক সাধারণসভায় হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। দুজন পুরুষ কাউন্সিলর নারী কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে ‘দয়া দেখাই বলে ঘাড়ের ওপর ওঠে যাচ্ছেন’-এ জাতীয় বক্তব্য রাখেন। এতে সংক্ষুব্ধ হয়ে নারী কাউন্সিলরা তাৎক্ষণিক সভা বর্জন করেন।
সিসিকের ৭ জন নারী কাউন্সিলর জানান, প্রতি মাসেই সিসিকের মাসিক সাধারণ সভা হয়। ওই সভায় পুরুষ কাউন্সিলররা পেশিশক্তির দাপট দেখিয়ে নারী কাউন্সিলরদের কোনো কথা বলতে দেন না। এতে তারা এলাকার দাবিদাওয়া তুলে ধরতে পারেন না। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় ছিল মাসিক সভা। সেখানে সকল নারী কাউন্সিলর উপস্থিত ছিলেন। সভায় যখন নারী কাউন্সিলরা এলাকার সমস্যা তুলে ধরতে চান; তখন ২০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম তাদের কথা বলতে দেননি। উল্টো তাদের থামিয়ে দিয়ে বলেন, আমরা দয়া দেখাই বলে আপনারা চলছেন। এসময় নারী কাউন্সিলরা প্রতিবাদ করেন। এতে সভায় হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। নারী কাউন্সিলররা তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ করে এই বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন। কিন্তু দাবি না মানায় তারা সঙ্গে সঙ্গে একযোগে সকল নারী কাউন্সিলররা সভা থেকে ওঠে তাদের মিলনায়তনকক্ষে চলে যান। সেখানে কক্ষে বসে তারা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
২৫ ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর রোকসানা বেগম শাহনাজ জানান, নারীদের সম্মান করা জানেন না বলেই এসব সাধারণ সভায় কিছু পুরুষ কাউন্সিলর কথা বলেন লাগামছাড়া। নারী হলেও আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত কাউন্সিলর। জনগণের দাবি নিয়ে কথা বলতেই আমরা জনপ্রতিনিধি। তাই যে দুজন কাউন্সিলর নারীদের উদ্দেশে অশালীন বক্তব্য দিয়ে ‘দয়া দেখানোর কথা’ বলেছেন। তাদের অরুচিকর বক্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।
নারী কাউন্সিলর শামিমা স্বাধীন বলেন, এখন পর্যন্ত কোনো নারী কাউন্সিলর কোথাও দখলবাজি ও দুর্নীতি করেননি। কিন্তু অনেক পুরুষ কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ আছে। আমরা নারীরা জনগণের কথা বলতে সভায় বসেছি। সেখানে পেশিশক্তির জোরে কেউ কেউ অশালীন বক্তব্য রাখেন। তারা ঘরে যদি নারীদের সম্মান করতেন, তাহলে এভাবে একটি রুচিসম্মত সভায় অশালীন বক্তব্য রাখতে পারতেন না। আমরা এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
অভিযোগ সম্পর্কে জানতে কাউন্সিল আজাদুর রহমান আজাদ ও ফরহাদ চৌধুরী শামিমের মুঠোফোনে বার বার কল করলেও তারা কল রিসিভি করেননি।
এ বিষয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব জানান, দুজন পুরুষ কাউন্সিলরের সঙ্গে নারী কাউন্সিলরদের একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। তারা ওয়াকআউট করে সভা থেকে চলে গেছেন। এছাড়া কিছু বলা যাচ্ছে না।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open