শনিবার, জানুয়ারী ২৩, ২০২১ : ১১:২২ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

দুই মন্ত্রীর ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট নয় আপিল বিভাগ

2ডেস্ক রিপোর্ট :: প্রধান বিচারপতি ও বিচারাধীন বিষয় নিয়ে বক্তব্য দেওয়ায় আদালতের চাওয়া ব্যাখ্যা দিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক ও খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম। তবে তাদের দেয়া ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হতে পারে নি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। তাই ২৭ মার্চ তাদের আবারও আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

রোববার সকালে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে আপিল বিভাগের ৭ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য মামলাটি  কার্যতালিকায় এক নম্বরে ছিল।

আদালতে খাদ্যমন্ত্রী কামরুলের পক্ষে সময় আবেদনের শুনানি করেন অ্যাডভোকেট আব্দুল বাসেত মজুমদার। মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হকের পক্ষে ব্যারিস্টার রফিক-উল হক শুনানি করেন।

অপরদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

এর আগে সকাল পৌনে ৯টার দিকে  দুই মন্ত্রী তাদের বক্তব্যেও বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে সুপ্রিম কোর্টে হাজির হন।

প্রধান বিচারপতি সম্পর্কে কুরুচি পূর্ণ মন্তব্যের জেরে আদালত অবমাননার অভিযোগে জারি করা রুলের পরিপ্রেক্ষিতে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে গত সোমবার আবেদন করেছেন দুই মন্ত্রী। তার পরের দিন মঙ্গলবার  মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী সুপ্রিমকোর্টে হাজির হন। ওই দিন খাদ্যমন্ত্রী হাজির না হওয়ার ২০ মার্চ পূর্ণ শুনানির দিন ঠিক করেন আদালত।

এর আগে জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর আপিলের রায় নিয়ে গত ৫ মার্চ প্রধান বিচারপতিকে জড়িয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন দুইমন্ত্রী। এতে ৮ মার্চ আপিল বিভাগ খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হককে তলব করেন।

একই সঙ্গে আদালত অবমাননার অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেওয়া হবে না তার ব্যাখ্যাও জানতে চাওয়া হয়। ১৫ মার্চ তাদের আদালতে হাজির হওয়ার দিন ধার্য ছিল। ওই দিন সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০ মার্চ আবারও তারিখ ঠিক করা হয়। আজও দুই মন্ত্রী হাজির হয়েছিলেন আদালতে কিন্তু তাদের দেয়া বক্তব্যেও বিষয়ে আদালত সন্তুষ্ঠ না হওয়ায় আবারও হাজির হয়ে কারণ ব্যাখ্যার জন্য বলেছেন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বেতন স্কেল ১০ গ্রেডে উন্নীতকরণের দাবি প্রধান শিক্ষকদের

ডেস্ক রিপোর্ট :: দ্বিতীয় শ্রেণির গেজেটেড (নন-ক্যাডার) প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন উভয় প্রধান শিক্ষকদের প্রবেশ পদে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open