রবিবার, অক্টোবর ২৫, ২০২০ : ৪:৩৭ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

‘ডেইলি স্টার সম্পাদকের বিরুদ্ধে সিলেট সহ সারা দেশে একই দিনে ১২ মামলা- সিলেটে২০০ কোটি টাকার মানহানির অভিযোগ

pic-5 copyস্টাফ রিপোর্টার :: ইংরেজি দৈনিক ‘ডেইলি স্টার’-এর সম্পাদক মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে দুটিসহ দেশের বিভিন্ন আদালতে গতকাল রোববার মোট ১২টি মামলা হয়েছে। এসব মামলার মধ্যে ১০টিতে মানহানি একটি রাষ্ট্রদ্রোহ এবং একটিতে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে।
সিলেট ছাড়াও ঢাকায় একটি, শরীয়তপুরে তিনটি, খুলনা ও এবং নেত্রকোনা, রাঙামাটি, জামালপুর ও দিনাজপুরে একটি করে মামলা দায়ের করা হয়। এ নিয়ে গতকাল পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন আদালতে মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগে মোট ১৬টি মামলা ও রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে একটি নালিশি আবেদন করা হলো।
প্রায় সব মামলার আরজিতেই বলা হয়, ২০০৭-২০০৮ সালে সেনা-সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে গোয়েন্দা সংস্থার সরবরাহ করা তথ্য কোনো ধরনের যাচাইবাছাই না করেই মাহ্ফুজ আনাম তাঁর পত্রিকা ‘ডেইলি স্টার’-এ প্রকাশ করেন, যা ইতিমধ্যে তিনি স্বীকারও করেছেন। এসব প্রতিবেদনের কারণে শেখ হাসিনাকে দীর্ঘ এক বছর কারাভোগসহ সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন ও নানাভাবে হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। শেখ হাসিনাকে জড়িয়ে মাহ্ফুজ আনাম ওই সময় মিথ্যা, বানোয়াট ও বিভ্রান্তিমূলক মানহানিকর সংবাদ পরিবেশন করায় তাঁর (শেখ হাসিনা) মানহানি হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়। এসব মামলার বাদী আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগ এবং এর সহযোগী, ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন বা আওয়ামী লীগের সমর্থক সংগঠনের নেতা-কর্মী।
জানা যায়, মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকা করে মোট ২০০ কোটি টাকার মানহানির অভিযোগে সিলেটে দুটি মামলা হয়েছে। আদালত মামলার শুনানি শেষে আগামী ৩০ মার্চ মাহ্ফুজ আনামকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।
গতকাল দুপুরে সিলেট মহানগর মুখ্য হাকিম সাইফুজ্জামানের আদালতে মামলা দুটি করেন নগর ছাত্রলীগের বর্তমান সভাপতি আবদুল বাসিত রুম্মান ও সাবেক সভাপতি রাহাত তরফদার।
মামলা দুটিতে বলা হয়, ডেইলি স্টার যাচাই না করে ওই ‘বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ’ প্রকাশ করায় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক নেত্রী শেখ হাসিনা ও সংগঠনের মানহানি হয়েছে অভিযোগ করে একশ’ কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণও চাওয়া হয়েছে মামলা দু’টিতে।
ওই দুই মামলার শুনানিতে অংশ নেন ও আইনজীবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অ্যাডভোকেট মাছুম আহমদ, অ্যাডভোকেট এ কে এম সামিউল আলম, অ্যাডভোকেট রুহুল আনাম মিন্টু, অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির বাবুল, অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন, এড. রেজাউল করিম খান, অ্যাডভোকেট মাহফুজুর রহমমান, অ্যাডভোকেট সরোয়ার হসেন খসরু, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম, অ্যাডভোকেট বদরুল ইসলাম। এছাড়ও উপস্থিত ছিলেন মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাইফুর রহমান খোকন, ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ময়নুল ইসলাম, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি একরামুল হাসান শিরু প্রমুখ।
আবদুল বাসিত রুম্মানের আইনজীবী হুমায়ুন কবীর বাবুল জানান, আদালত মামলা আমলে নিয়ে ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনামের উপর সমন জারি করেছেন।
সিলেট জজ আদালতের এডিশনাল পিপি এডভোকেট মো. সামছুল ইসলাম জানান, আদালত মামলাগুলো আমলে নিয়েছেন। মামলার আসামী দৈনিক ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম ২০০৭ সালে তার পত্রিকায় শেখ হাসিনা সম্পর্কে মানহানিকর যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। তিনি বলেন, সে বিষয়য়ে আদালত মামলাগুলো গ্রহণ এবং মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে সমন ইস্যু করেন।
এর আগে গত ৬ ফেব্রুয়ারি একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টক শোতে অংশ নিয়ে মাহফুজ আনাম সংবাদ প্রকাশের ব্যাপারে তার ভুল স্বীকার করেন। এরপরই বিষয়টি নিয়ে দেশব্যাপী নানা আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।
এদিকে, মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে বাংলাদেশ প্রজন্ম লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান হাবিব তালুকদার গতকাল ১০ হাজার কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছেন। মুখ্য মহানগর হাকিম প্রণব হুই ওই ঘটনা তদন্ত করে রাজধানীর মুগদা থানার পুলিশকে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।
এছাড়া শরীয়তপুর মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে আজ মানহানির অভিযোগে মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে তিনটি মামলা হয়েছে। জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নুরুল আমীন কোতোয়াল, মুক্তিযুদ্ধ প্রজন্ম লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হাসিবুল ইসলাম ও জাজিরা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ মিয়া মামলাটি তিনটি করেছেন।
বাদী নুরুল আমীন কোতোয়ালের আইনজীবী তাজুল ইসলাম বলেন, শরীয়তপুর মুখ্য বিচারিক হাকিম আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ হাকিম মোরশেদ আল মামুন মামলা তিনটি আমলে নিয়েছেন। এর মধ্যে নুরুল আমীন ও হাসিবুল ইসলামের দায়ের করা মামলা দুটিতে মাহ্ফুজ আনামকে আগামী ৪ এপ্রিল আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারিক। অপর মামলাটি পুলিশকে তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।
অন্যদিকে, খুলনায়, মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে আজ খুলনা মুখ্য মহানগর হাকিমের আমলি আদালতের বিচারক আয়েশা আক্তার মৌসুমীর আদালতে ১০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন জেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক তসলিম হুসাইন তাজ। এ ছাড়াও মুখ্য বিচারিক হাকিম ও আমলি আদালতের বিচারক মো. মঞ্জুরুল হোসেনের আদালতে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পারভেজ হাওলাদার পাঁচ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছেন।
মামলা দুটির আরজির বিবরণ প্রায় একই রকম। দুই বাদীর আইনজীবীও একই ব্যক্তি। বাদী পক্ষের আইনজীবী ফরিদ আহমেদ জানান, তসলিম হুসাইনের করা মামলাটি আমলে নিয়ে তা তদন্তের জন্য খুলনা সদর থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্য মহানগর হাকিমের আমলি আদালতের বিচারক আয়েশা আক্তার মৌসুমী। এ মামলার পরবর্তী তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে আগামী ২৮ মার্চ। ওই দিন তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতেও বলা হয়েছে।
এদিকে পারভেজ হাওলাদারের করা মামলাটি আমলে নিয়ে মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন মুখ্য বিচারিক হাকিম ও আমলি আদালতের বিচারক মো. মঞ্জুরুল হোসেন। বিচারক তাঁকে ২৯ মার্চ আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন। ওই দিনই এ মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য করা হয়েছে।
রাঙামাটি জেলায়ও গতকাল বেলা ১১টার দিকে মুখ্য বিচারিক হাকিমের আমলি আদালতে মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন কাপ্তাই উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ম নাসির উদ্দিন। বিচারক মো. সামস উদ্দিন খালেদ মামলাটি আমলে নেন। একই সঙ্গে আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দিয়েছেন।
দিনাজপুরে মাহফুজ আনামের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ এনে গতকাল দিনাজপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিম আহসানুল হকের আদালতে জেলা আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সামছুর রহমান একটি মামলা করেছেন। মামলা আমলে নিয়ে বিচারক সশরীরে আদালতে হাজির হতে মাহ্ফুজ আনামের প্রতি সমন জারি করেছেন।
মামলার বাদী জেলার খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক সামছুর রহমান জানান, এক-এগারোর সময় অসৎ উদ্দেশ্যে, প্রকৃত তথ্য গোপন করে জনমনে বিদ্বেষ ছড়ানোর জন্য মাহ্ফুজ আনাম তাঁর সম্পাদিত পত্রিকায় অসত্য খবর পরিবেশ করেন, যা অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের শামিল।
আমলি আদালতের (সদর) বেঞ্চ সহকারী কান্তিভূষণ সরকার জানান, মুখ্য বিচারিক হাকিম আহসানুল হক বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে মামলাটি আমলে নিয়ে আগামী ১৪ জুন সশরীরে আদালতে হাজির হতে মাহ্ফুজ আনামকে নির্দেশ দিয়েছেন।
অপরদিকে, নেত্রকোনায় রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও মানহানির অভিযোগে মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে নেত্রকোনায় অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে মামলা হয়েছে। গতকাল মামলাটি করেন জেলা জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জি এম খান পাঠান। মামলায় এক-এগারোর পরবর্তী সময়ে গোয়েন্দা সংস্থার দেওয়া তথ্য যাচাই না করে আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভানেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে মানহানিকর সংবাদ প্রকাশের অভিযোগ আনা হয়েছে।
বাদীর আইনজীবী মানবেন্দ্র বিশ্বাস উজ্জ্বল জানান, মামলায় মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে ১২০ (ক) ধারা মোতাবেক রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এবং ৫০১ ধারা মোতাবেক মানহানির অভিযোগ আনা হয়েছে। আদালতের বিচারক আলমগীর কবীর শিপন মামলার বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে মামলাটি তদন্তের জন্য নেত্রকোনা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দেন।
রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে গতকাল বিকেলে জামালপুর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম (সদর ‘গ’ অঞ্চল) এ কে এম মঈন উদ্দীন সিদ্দিকীর আদালতে নালিশি আবেদন করেছেন ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক এস এম জামাল আবু নাসের। বিচারক অভিযোগটি আমলে নিয়ে জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।
এর আগে মাহ্ফুজ আনামের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনে ঢাকার আদালতে একটি নালিশি আবেদন করা হয়েছে। আদালত এ বিষয়ে সরকারের অনুমোদন নিয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন। এ ছাড়াও এর আগে তাঁর বিরুদ্ধে মানহানির অভিযোগে গোপালগঞ্জ, কক্সবাজার, লক্ষ্মীপুর এবং খুলনায় একটি করে মোট চারটি মামলা করা হয়।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open