বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৮, ২০২১ : ৯:০৪ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

সিলেটে অটোরিকশা ধর্মঘটে দিনভর ভোগান্তির পর সন্ধ্যায় প্রত্যাহার

Exif_JPEG_420
Exif_JPEG_420

স্টাফ রিপোর্টার :: দায়িত্ব পালনের নামে পুলিশের অহেতুক হয়রানির প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালনে সিলেটের সড়কগুলোতে নেমেছিলেন চালকরা। গতকাল দিনভর এ ধর্মঘটে সিএনজি চালকরা সড়ক অবরোধ করেন। এতে বিভিন্ন গাড়ির যাত্রীরা মাঝপথে আটকা পড়ে এবং অনেক যাত্রী সড়কে কোনো গাড়ি না পেয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েন। মহাসড়কে পায়ে হেঁটে দুর্ভোগ পোহান এসব যাত্রীরা। তবে, জেলা প্রশাসকের আশ্বাসে সন্ধ্যায় ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেন সিএনজি অটোরিকশা চালকরা।
সরেজমিনে দেখা গেছে, রোববার সকালেই সিএনজি অটোরিকশা চালক সমিতি সিলেট জেলার নেতাদের ডাকে সড়কে নেমে পড়েন শ্রমিকরা। তারা সড়কে সড়কে অবরোধ শুরু করেন। সকালবেলা স্কুল ও অফিসের উদ্দেশ্যে বের হয়ে আচমকা অবরোধে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় যাত্রীদের। সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক, সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়ক, সিলেট-তামাবিল সড়ক ও সিলেট-বিয়ানিবাজার সড়কে দিনভর অবরোধে অচল ছিল রাস্তাঘাট। যাত্রীরা গাড়ি থেকে নেমে পায়ে হেঁটে পথ চলতে দেখা যায়। আবার অনেক যাত্রীরা মোড়ে মোড়ে দাঁড়িয়ে গাড়ির জন্য অপেক্ষায় ছিলেন। সকালে দুএকটি বাস চলতে দেখা গেলেও দুপুরে সড়ক অবরোধ করে অটো শ্রমিকরা পথপ্রতিবাদ সভা করায় বাস ও ট্রাক আটকা পড়ে। এতে শিক্ষার্থীসহ সকল যাত্রীরা দুর্ভোগ পড়েন। অফিস ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যাত্রীরা অনেকটাই ভোগান্তিতে পড়েন। অটোরিকশা না পেয়ে যাত্রীরা বিভিন্ন পিকআপ ভ্যানে করে ঝুঁকি নিয়ে গন্তব্যে পৌঁছাতে দেখা গেছে। খবর পেয়ে বিকেলে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের তেলিবাজারে ছুটে যান দক্ষিণ সুরমা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক।
এদিকে, সিলেটের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসকের দেওয়া আশ্বাসে প্রত্যাহার করা হয়েছে সিএনজি অটোরিকশা ধর্মঘট। রোববার বিকাল ৫টা থেকে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসকের সাথে সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন নেতাদের দু’ঘন্টাব্যাপী বৈঠকের পর ধর্মঘট প্রত্যাহার হয়েছে বলে দাবি করেন আম্বরখানা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল মিয়া। তিনি জানান, ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা শ্রমিকলীগ সভাপতি এজাজুল হক এজাজ, সিলেট জেলা সিএনজি অটোরিকসা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. জাকারিয়াসহ  পরিবহণ শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বৈঠকে শ্রমিক নেতাদের দেওয়া ঘোষণা অনুযায়ী রোববার সন্ধ্যার পর থেকেই অটোরিকশা চলাচল স্বাভাবিক হয়।
সিলেট জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোহাম্মদ জাকারিয়া জাগো জানান, প্রতিনিয়ত সিএনজি চালকদের বিরুদ্ধে পুলিশ অকারণে মামলা দায়েরসহ বিভিন্নভাবে হয়রানি করে যাচ্ছে। প্রয়োজনের অতিরিক্ত ফিস আদায় ছাড়াও অবৈধ পার্কিংয়ের নামেও করা হচ্ছে জরিমানা। বৈধ এই পরিবহনের মালিক শ্রমিকরা এসব হয়রানির কারণে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. জয়নাল আবেদিন বলেন,‘ আমি ছুটিতে বাড়ি আছি। এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।’
প্রসঙ্গত, কাগজপত্র, অবৈধ পার্কিংসহ বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে শনিবার রাতে সিলেটে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দেয় জেলা সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open