বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৮, ২০২১ : ৯:০০ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

অটোরিকসা ধর্মঘটে দুর্ভোগে সাধারণ মানুষ

51327 ডেস্ক রিপোর্ট ::  সিলেটে চলছে অনির্দিষ্টকালের সিএনজি অটোরিকসা ধর্মঘট। পুলিশি হয়রানি বন্ধের দাবিতে ডাকা ধর্মঘটে বন্ধ রয়েছে হালকা এ যানবাহনের চাকা। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ সাধারণ লোকজনকে। কাগজপত্র সমস্যা, রং পার্কিংসহ বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে ট্রাফিক পুলিশের মামলা ও জরিমানা আদায়ের প্রতিবাদ ও এসব বিষয়ে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণের দাবিতে শনিবার বিকেলে ধর্মঘটের ডাক দেয় সিলেট জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন। ঘোষণা অনুযায়ী রোববার সকাল ৬টা থেকে ধর্মঘট শুরু হয়। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা রয়েছে শ্রমিকদের। এদিকে, রবিবার নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে মিছিল ও পথসভা করছেন শ্রমিক ও নেতারা। অনির্দিষ্টকালের জন্য ডাকা এ ধর্মঘটে ভোগান্তিতে পরেছেন সাধারণ মানুষ। কর্মজীবী লোকজন যেমন নিজেদের কর্মক্ষেত্রে যথাসময়ে পৌঁছতে পারেননি তেমনি ধর্মঘটের কারনে শিক্ষার্থীরা যাতায়াতে চরম সমস্যায় পড়ে। বিশেষ করে এসএসসি পরীক্ষার্থী ও তাদের স্বজনরা যানবাহন সংকটে দুর্ভোগের শিকার হন।
নগরীর বিভিন্ন পয়েন্ট তথা স্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা যায়- অসংখ্য মানুষ যানবাহনের জন্য অপেক্ষায় করছেন। অনেকে আবার ধর্মঘটের ব্যাপারে স্ট্যান্ডে আসার আগে কিছুই জানেননি।
নগরীর দক্ষিণ সুরমা হুমায়ুন রশীদ পয়েন্টে যানবাহনের অপেক্ষায় থাকা জামাল উদ্দিন বলেন, বিদেশ থেকে তার এক আত্মীয় আজ দেশে আসছেন। তাই তিনি বিমানবন্দর যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি (শিববাড়ি এলাকায়) থেকে রওয়ানা হন। কিন্তু সিএনজি অটোরিকসা ধর্মঘটের কারণে তাকে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে।
সিলেট নগরীর আম্বরখানা এলাকায় আলাপ হয় গোবিন্দগঞ্জ থেকে আগত সিরাজ উদ্দিনের সাথে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সাধারণ মানুষ এখন জিম্মি। যার মনে যখন যা আসে তা-ই করে। কেউ কারো সমস্যা বুঝতে চায় না। সিএনজি অটোরিকসা না পাওয়ায় অনেক কষ্ট করে তিনি কুমারগাও বাস স্টেশন থেকে আম্বরখানা পৌঁছলেও লক্ষ্যস্থল উপশহরে যেতে তাকে রিকশাই ব্যবহার করতে হবে বলে জানান সিরাজ। আর এজন্য অতিরিক্ত টাকাও তার ব্যয় হবে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
তবে ধর্মঘটের কারণে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি সীমা না থাকলেও এ ব্যাপারে তাদের আর কোনো পথ ছিল না বলে জানান সিলেট জেলা অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. জাকারিয়া। তিনি বলেন, ধর্মঘটে মানুষের কষ্ট হয় -এটা আমরা বুঝি। কিন্তু আমাদের কষ্ট কেউ বুঝে না। পুলিশি হয়রানির বিষয়ে বার বার সংশ্লিষ্টদের কাছে ধর্ণা দিলেও কোনো লাভ হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open