বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২২, ২০২০ : ১১:২৩ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

আম্বরখানা গালর্স কলেজেরছাত্রী অপহরণের ৭ দিনেও উদ্ধার হয়নি

imagesস্টাফ রিপোর্টার: অপহরণের সাতদিন পেরিয়ে গেলেও সিলেট নগরীর আম্বরখানা গালর্স স্কুল এন্ড কলেলের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রী ফাহমিদা তাবাসুম সাদিয়াকে (১৭) উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। অপহৃত সাদিয়া নগরীর চৌকিদেখী রংধনু ২০২/৬ লিয়াকত আলীর কন্যা। গত ২৮ জানুয়ারী বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে মজুমদারী এলাকার ফুলকলির সামন থেকে অপহরনকারীরা সাদিয়াকে অপহরন করে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানার জাকছড়ায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় সাদিয়ার মা সাহানারা বেগম বাদি হয়ে ৬ জনকে আসামী করে এয়ারপোর্ট থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। নং- ১ (০৩-০২-১৬)।
মামলার আসামীরা হচ্ছে, মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানার জাকছড়া গ্রামের আব্দুল কাশেমের পুত্র বখাটে কাউছার আহমদ (২২), তার পিতা আব্দুল কাশেম (৪৫), তার মা মুন্নি বেগম (৪০), ইসরাইল মেম্বার (৪৫), মারুফ (২৬) ও নিয়াজী (৪০)। পুলিশ এখন পর্যন্ত তাদেরকে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। পুলিশ বলছে এ ব্যাপারে অভিযান চলছে।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, সাদিয়াকে কলেজে আসা-যাওয়ার পথে প্রায়ই উত্যক্ত করে আসছিল বখাটে কাউছার আহমদ। বিষয়টি সাদিয়া তার পরিবারকে জানায়। পরে তার পরিবার এ বিষয়ে কাউছারের পরিবারের কাছে নালিশ করলে তারা কোন কর্ণপাত না করে বরং কাউছারকে আরও উৎসাহ দিয়ে সাদিয়ার পিছনে লেলিয়ে দেয়। গত ২৮ জানুয়ারী বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে সাদিয়া কলেজ থেকে বাসায় ফেরা পথে কাউছার তার সহযোগীদের নিয়ে একটি সিএনজি অটোরিক্্রায় তুলে অপহরন করে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে যায়। পরে তারা জানতে পারেন কাউছারসহ তার পরিবার সাদিয়াকে অপহরণ করে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল থানার জাকছড়ায় আটকিয়ে রেখেছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এয়ারপোর্ট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) লোকমান হোসেন জানান, অপহৃত সাদিয়াকে উদ্ধার ও আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open