সোমবার, জানুয়ারী ২৫, ২০২১ : ১০:৪২ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

মাধবপুরে ৩০০ ফিট সরকারী রাস্তা কেটে পুকুর নির্মাণ

3.1-300x170আবুল হোসেন সবুজ, মাধবপুর : হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নে একটি ব্যস্ততম সড়ক কেটে পুকুর খনন করে জনসাধারণের চলাচল বন্ধ করার পর সড়কের বাকী অংশের প্রায় ২০টি বিভিন্ন প্রকার গাছ কেটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গত মঙ্গলবার রাতে এক্সেভেটর (ভেকো) মেশিন দিয়ে সড়কের প্রায় ৩শ ফিট দৈর্ঘ্য অংশ কেটে পুকুর খনন করে উচুঁপাড় বেঁেধ রাস্তাটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। তাছাড়া গত শনিবার সকাল থেকে সড়কের অবশিষ্ট অংশে থাকা সরকারি ৮ টি গাছ কেটে নিয়ে যায় তারা। পরে মনতলা ভূমি অফিসের তহশীলদার নারায়ণ দেব তদন্ত করে সত্যতা পেয়ে বাকী গাছগুলো না কাটার জন্য নির্দেশ দিয়ে আসেন। এ নিষেধাজ্ঞা স্বত্ত্বেও গত সোমবার সকাল থেকে অবশিষ্ট সড়কের আরও প্রায় ১২টি গাছ কেটে নিয়ে যায় ওই দুর্বৃত্তরা। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম কামাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, ধর্মঘর ইউনিয়নের সুলতানপুর- কালির বাজার সড়ক হইতে হাঁপানিয়া গ্রামের মধ্য দিয়ে হরষপুর ষ্টেশন বাজার পর্যন্ত সড়কটি আইডি নং- ৬৩৬৭১৫০৯৫ দৈর্ঘ্য দেড় কিলোমিটার রাস্তাটি এলাকার সুলতানপুর, কালির বাজার, রসুলপুর, নুরুল্লাপুর, হাঁপানিয়া সহ পাশ্ববর্তী কয়েকটি গ্রামের প্রায় ৫ হাজার লোক যাতায়াত করে। ওই সব গ্রামগুলোর ছেলে মেয়েরা এই একমাত্র রাস্তা ধরেই বঙ্গবীর উচ্চ বিদ্যালয়, হরষপুর মাদ্রাসা সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে যাতায়াত করে। মঙ্গলবার রাতে হাঁপানিয়া গ্রামের প্রভাবশালী মৃত মতিউর রহমানের ছেলে শমসু মিয়া ও ধনু মিয়া তাদের বাড়ির দক্ষিণ পাশে এক্সেভেটর (ভেকো) মেশিন দিয়ে সড়কের প্রায় ৩শ ফিট দৈর্ঘ্য অংশ কেটে ৬০ শতক ভূমিতে খনন করা পুকুরের সাথে মিশিয়ে দেয়। ফলে ওই এলাকার জনচলাচলের মারাত্মক বিঘœ সৃষ্টি হয়। সরজমিনে খননকৃত পুকুর পাড়ে গিয়ে হেয়ালী খেলায় রত ছোট ছোট কিছু ছেলে মেয়েকে পূর্ব দিকে যাওয়ার রাস্তার কথা জিজ্ঞেস করলে তারা জানায়, পুকুরের মধ্য দিয়ে রাস্তা ছিল। রাতে শমসু মিয়া ও ধনু মিয়া রাস্তা ও জমি কেটে পুকুর বানিয়ে ফেলেছে। জনৈক এনু মিয়া জানান, আজকে প্রায় ৩০ বছর ধরে সরকারী এ রাস্তাটি আমরা সহ কয়েকটি গ্রামের লোকজন ব্যবহার করে আসছি। গত মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ এলাকার প্রভাবশালী লোকজন রাস্তাটি ও দুপাশের জমি কেটে পুকুর খনন করে ফেলে। হাঁপানিয়া গ্রামের সর্দার মাহমুদ হোসেন ও মকসুদ আলী জানান, এলাকার প্রভাবশালী শমসু মিয়া ও তার ভাই ধনু মিয়া মেশিন দিয়ে মঙ্গলবার রাতে রাস্তাটিসহ উভয় পাশের প্রায় ৬০শতক জমি কেটে পুকুর খনন করে এর সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। এক রাতে এতবড় পুকুর খনন করা যা শুনতে রূপকথার গল্পের মত মনে হলেও বাস্তবে শতভাগ সত্য। তাদেরকে বাধা দিলে তারা বিভিন্ন ভাবে হয়রানির হুমকি দেয় আমাদের। তারা গ্রামবাসীর অনুরোধ রক্ষা করেনি। বিষয়টি তারা স্থানীয় চেয়ারম্যানকে অবহিত করেন বলে জানান তারা। স্থানীয় ইউপি সদস্য ফিরোজ মিয়া জানান, মতিউর রহমানের ছেলে শমসু মিয়া ও ধনু মিয়া রাস্তা কেটে পুকুর খনন করেছে। সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুন নুর এলাকাবাসীর চলাচলের সুবিধার্থে রাস্তাটি নির্মাণ করেছিলেন। রাস্তার পাশেই এলাকাবাসীর করবস্থান ছিল, কবরস্থানটিও তাদের এক্সেভেটরের কবল থেকে রক্ষা পায়নি বলে জানান স্থানীয় মুরুব্বীরা। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম কামাল এর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি গাছ ও রাস্তা কাটার ঘটনা সত্য বলে জানান। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলাম জানান, ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল ইসলাম কামাল বিষয়টি তাকে লিখিত ভাবে অবহিত করেছেন। এবং তহশীলদার দিয়ে তিনি বিষয়টি তদন্ত করিয়েছেন। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রভাবশালী শমসু মিয়া ও ধনু মিয়া জানান, রাস্তা ছিল আমরা পুকুর খনন করেছি উত্তর দিক দিয়ে রাস্তা তৈরী করে দিব। সরকারী রাস্তা ও গাছ অনুমতি নিয়ে কেটেছেন কি না জানতে চাইলে তারা না জবাব দেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদুল ইসলামের নির্দেশে মনতলা তহশিল অফিসের ভ’ূমি কর্মকর্তা নারায়ন দেব তদন্ত করে জনান রাস্তা ও গাছ কাটার বিষয়ে শতভাগ সত্যতা পাওয়া গেছে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open