বুধবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২১ : ৪:৩৫ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

জনসভায় কেন্দ্রীয় নেতারা যা বললেন

syleh-300x199নাবিদ হাসান: আসলেন-দেখলেন বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন আর আগামীদিনে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে চলে গেলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবার ক্ষমতা গ্রহনের পর প্রথমবারের মতো সিলেটে এসে তিনি আবারো ঘোষণা করলেন- সিলেটবাসী আমার কাছে উন্নয়ন চাইতে হবেনা- কীভাবে উন্নয়ন করতে হয় আমার জানা আছে। প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফর সঙ্গী হিসেবে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের বহরও ছিল। কেন্দ্রীয় নেতারা আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে সিলেট জেলা ও মহানগর আয়োজিত জনসভায় বক্তৃতা দেন। তাদের বক্তব্যের উঠে এসেছে সিলেটবাসীর বিভিন্ন দাবি ধাওয়া ও প্রত্যাশার কথা।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ৭ বছরে দেশ অনেক এগিয়ে গেছে। এ সরকার মানুষের মুক্তি ও কল্যাণের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এ সরকারের আমলেই দেশে অভূতপূর্ণ উন্নয়ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় নেতৃত্ব ও প্রজ্ঞায় দেশের অর্থনীতি যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি শক্তিশালী। যার কারণে দেশ তর তর করে এগিয়ে যাচ্ছে।
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত বলেন, আওয়ালীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাঘের বৃষ্টির পর সিলেটবাসীর জন্য রোদ নিয়ে এসেছেন। খালেদা জিয়া আসলে তুফান নিয়ে আসতেন। কারণ খালেদা জিয়া অশান্তি ছাড়া মানুষকে আর কিছুই দিতে পারেননি।
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এই জনসভায় সিলেটবাসীর কিছু দাবি-দাওয়া রয়েছে। সিলেট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজকে বিশ^বিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করা। মেডিকেল কলেজকে বিশ^বিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করা। মঞ্চে বসে উপস্থিত প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে সুরঞ্জিত বলেন, আল্লাহর ওয়াস্তে সিলেটবাসীর এই দুটি দাবি সম্পর্কে আপনে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা দেবেন এই আশায় সিলেটের মানুষ সেই দুপুর থেকে এখানে বসে আছে। মাঠে যত মানুষ আছেন এর চেয়ে বেশি মানুষ আছেন মাঠের বাইরে, বলেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।
তিনি বলেন, বিএনপি ও তার সহচর জামায়াত দেশ ও জাতির ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়িয়েছে, ওরা কোনো শুভকাজ সহ্য করতে পারে না। সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, বিএনপি যখনই ক্ষমতায় গিয়েছে দেশে লুটপাট ও সন্ত্রাসের রাজস্ব কায়েম করেছে। আর সে দলটি দোষর জামাত এসব কাজে প্রত্যাক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করেছে।
তিনি বলেন, ক্ষমতায় থাককালে বিএনপি জামাত যেমন স্বৈরাচারী আচরণ করে তেমনি জনগণ কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয়েছে তারা দেশে অরাজকতা চালায়। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে উস্কে দেয়। বোমা- গ্রেনেড হামলা চালায়। মানুষকে পুড়িয়ে মারে। জ্বালিয়ে দেয় যানবাহন।
সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, দেশের উন্নয়ন, সমৃদ্ধি ও গণতন্ত্রেও বিকাশে আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বদ্ধপরিকর। কোনো বাধাই এ লক্ষ্যেও বিচ্যুতি ঘটাতে পারবে না।
বাংলাদেশের সংবিধান নিয়ে কারো ‘পাকিস্তান খেলা’ চলবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, যে সংবিধান পাশ হয়েছে তা দেশ ও জাতির কল্যাণ বয়ে আনবে। তাই সাংবিধানিক পদে থেকে কথা বার্তা বলতে হলে একটু হিসেব করে কথা বলতে হয়। মুখে যা আসে তা বললে চলবে না। জাতিকে বিভ্রান্তির মধ্যে না ফেলতে তিনি দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের প্রতি আহবান জানান।
গত উপজেলা নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ যাবতকাল পর্যন্ত যেসব নির্বাচন হয়েছে তার মধ্যে অন্যতম সুন্দর ও সুষ্ঠু নির্বাচন হলো এটি। অথচ নির্বাচনের ২১ দিন পর বিএনপি এক সভা করে বলাবলি শুরু করলো নির্বাচনে অনিয়ম হয়েছে। আর বিএনপির সাথে গলা মিলিয়ে এক বিদেশি মহিলা বলতে লাগলেন- মানবাধিকারও নাকি বিঘিœত হয়েছে।
শপথ নেওয়ার পর বিচারক যে রায় দেবেন তা পরে লিখলে সমস্যা কোথায় প্রশ্ন রেখে সুরঞ্জিত বলেন, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে রায়ের অনেক পর তা লেখা হয়।
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘোষণা অনুযায়ী মদন মোহন কলেজকে সরকারীকরণের জন্য আমি আমার পক্ষ থেকে সবধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখব ও প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি অচিরেই বাস্তবায়ন করব। শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের সিলেট শিক্ষা-দীক্ষার দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে ছিল। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে সিলেটের শিক্ষার মান অনেক বেড়েছে।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, আওয়ামীলীগ সবসময় সুসংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ। এবারের পৌরসভা নির্বাচনে সিলেটের ১৬ পৌরসভার মধ্যে আওয়ামীলীগ ১৩ টিতে জয়লাভ করেছে। আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও ঐকবদ্ধভাবে কাজ করে আওয়ামীলীগের বিজয় সুনিশ্চিত করতে হবে।
অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, এ জনসভায় সুনামগঞ্জবাসী প্রধানমন্ত্রীর কাছে কিছু দাবি-দাওয়া নিয়ে এসেছেন। এর মধ্যে রয়েছে সুনামগঞ্জে একটি বিশ^বিদ্যালয় ও একটি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা, সুনামগঞ্জ শহরকে ডিজিটাল শহরে রূপান্তরিত করা।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেটবাসীর জন্য উপহার নিয়ে এসেছেন। সিলেটে ইলেকট্রিক সিটি নিমার্ণেও মাধ্যমে এখানে ৩০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়েছেন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ : মন্দিরের জমি দখল নিতে পুরোহিতের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টা মামলা

প্রভাবশালী এক আওয়ামী লীগ নেতার যোগসাজশে মন্দিরের জায়গা দখলের জন্য স্থানীয় কিছু লোক এসব ঘটনা …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open