বুধবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২১ : ৩:৫৮ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

আসছেন প্রধানমন্ত্রী, আপ্যায়িত হবেন ‘সাতকরায়’

imagesস্টাফ রিপোর্টার :: সিলেটের স্বতন্ত্র খাবার সাতকরার (হাতকরা) প্রতি ভোজন রসিকদের আগ্রহের মাত্রা একটু বেশি। গরুর মাংসের সাথে সাতকরা, সুস্বাদু এক তরকারির নাম। কৌতুহল বাড়ায়, কখনো খাননি এমন লোকেরও। একবার খেলে, কখনো স্বাদ ভোলা যায় না- এমনই গুণ সাতকরায়।
সাতকরার গুণে মুগ্ধ সকলে। টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও মন পড়ে আছে সাতকরায়। গত বছরের ৮ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সিলেটের কাজীরবাজার সেতুসহ বেশ কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন কালে বলেন, ‘আমি অনেকবার সিলেটে গিয়েছি। কিন্তু সাতকরা দিয়ে গরুর মাংস কখনো খাইনি। সাতকরার দিয়ে গরুর মাংসের অনেক প্রশংসা শুনেছি। তাই এই আইটেমটি না খাওয়ার জন্য আমার আফসোস রয়ে গেছে। আমি আগামীতে সিলেট গেলে অবশ্যই গরুর মাংস দিয়ে সাতকরা খেতে চাই।’
প্রধানমন্ত্রী সেই ইচ্ছে পুরণ হচ্ছে আজ বৃহস্পতিবার। সকালে সিলেট পৌছার পর শাহজালাল, শাহপরান (রাহ.) মাজার জিয়ারত, মদনমোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের হীরকজয়ন্তীতে যোগদান শেষে নামাজের বিরতি ও মধ্যাহ্ণভোজ হবে সিলেট সার্কিট হাউজে। খাবারের অন্যান্য পদের সাথে হাতকরার পদও পরিবেশিত হবে প্রধানমন্ত্রীর জন্যে।
মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর পছন্দের সব খাবারই মেনুতে থাকবে। বিশেষভাবে থাকবে সাতকরা দিয়ে রান্না করা গরুর মাংস।
প্রসঙ্গত, সিলেট অঞ্চলের অধিকাংশ মানুষের রসনার অন্যতম অনুষঙ্গ এ সাতকরা। তবে সিলেটে একে ‘হাতকরা’ নামে ডাকা হয়। সিলেটের পরিসীমা ছাড়িয়ে দেশে-বিদেশেও জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে সাতকরা। টক আর তিতা স্বাদের সংমিশ্রণে ফলটির ঘ্রাণ অনন্য। দেখতে গোলাকার কমলার চেয়ে বড় আকৃতির ফলটির খোসা পুরু আর শাঁস পরিমাণে খুবই কম।
সাতকরা গাছে ফাল্গুন মাসে ফুল আসে। ফল পরিপক্ব হয় জ্যৈষ্ঠ-আষাঢ় মাসে। লেবুগাছের মতো সাতকরার কাঁটাভরা গাছ ২০ থেকে ২৫ ফুট লম্বা হয়। এ ফলের জন্মস্থান বাংলাদেশের সর্ব উত্তরপূর্বের সীমান্ত অঞ্চল সুনামগঞ্জের ছাতক, সিলেটের জৈন্তাপুর, বিয়ানীবাজার ও ভারতের আসাম সীমান্তে।
ছোট, মাঝারি ও বড় সাইজের সাতকরা সারা বছরই সিলেটের বাজারগুলোতে পাওয়া যায়। গরুর মাংসের পাশাপাশি ছোট মাছ ও কচু শাক দিয়েও সাতকরা খাওয়া যায়। বর্তমানে সিলেটের বাজারে কাচের বোয়ামে সাতকরার আচার পাওয়া যাচ্ছে। অন্য জেলা থেকে সিলেটে বেড়াতে আসা লোকজনের কাছে কাঁচা সাতকরার চেয়ে বোয়ামের আচারের কদরই বেশি। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ সুস্বাদু এ ফল রুচিবর্ধক, হজম সহায়ক ও বমিনাশক।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

ব্রিটিশ ভিসা সেন্টার নিয়ে সিলেটে যা বললেন রুশনারা আলী

সংক্ষিপ্ত সফরে সিলেটে অবস্থান করছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ বিষয়ক বাণিজ্যদূত ও ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এমপি রুশনারা …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open