সোমবার, অক্টোবর ২৬, ২০২০ : ১:০৯ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন -নেপথ্যে নোংরা রাজনীতি

imagesস্টাফ রিপোর্টার:: ছিলেন বন্ধু। রাজনীতির মাঠের সহকর্মী। দুই বন্ধু রজপথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ছাত্ররাজনীতি করে আসছিলেন। মিছিল-সমাবেশে একই বৃত্তে ছিল দুজনের পথচলা। শেষমেশ নোংরা রাজনীতির বলি হতে হল হাবিবকে। বন্ধু সাগরের গ্রুপের কর্মীরা তাকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নির্মমভাবে খুন করে। যে গ্রুপিংয়ে দু’জন দু’জনের পাশাপাশি থেকেছেন রজপথে লড়েছেন। সেই গ্রুপিং বদলের কারণেই সহকর্মীর হাতে খুন হন সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিবিএ চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ছাত্রলীগকর্মী কাজী হাবিবুর রহমান হাবিব।
দলীয় সূত্র জানায়, নিহত কাজী হাবিব সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্রলীগ নেতা হুসাইন আহম্মদ সাগরের কর্মী বলে পরিচিত। খুনের পর ফেসবুকে সাগরের সাথে অন্তরঙ্গ ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। সেই সাথে নিন্দার ঝড় উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ মানুষের মুখে মুখে। অনেকেই বলছেন, আসলে রাজনীতিতে কেউ কারো নয়,স্বার্থে আঘাত আসলে বন্ধুও শত্রু হতে কতক্ষণ ?
একাধিক সূত্র আরও জানায়, হাবিবের মৃত্যুর পর তাঁকে এখন ছাত্রলীগের কর্মী বলতে নারাজ খোদ আওয়ালীগের উচ্চ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। অথচ নিহত হাবিবের ফেসবুকের টাইমলাইনে আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দসহ সহযোগী সংগঠনের একাধিক নেতাকর্মীর সাথে তার ছবি দেখা গেছে।
তবে বুধবার দুপুরে নগরীর একটি হোটেলে প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফর উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নিহত হাবিবের বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন সংবাদকর্মীরা। এর  জবাবে আওয়ামী লীগ নেতারা নিহত হাবিবের বিষয়টি এড়িয়ে যান। আওয়ামী লীগ নেতারা যুক্তি তুলে ধরে বলেন,‘যে কোনো হত্যাকান্ড দুঃখজনক। তবে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ছাত্রলীগের কোনো ইউনিট নেই। শিক্ষার্থী খুনের ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।
প্রসঙ্গত, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ছাত্রলীগের একাধিক গ্রুপের আধিপত্য বিরাজ করে আসছিল। কদিন পর পর  এ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের অভন্তরীণ কোন্দলে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তবু এ বিষয়টি নিয়ে কোনো প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না। সর্বশেষ অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে গত মঙ্গলবার দুপুরে হাবিবুর রহমান হাবিবকে বেধড়ক পিঠিয়ে গুরুতর আহত করে ছাত্রলীগের কর্মীরা। রাত ১২টার দিকে নগরীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। হাবিব নগরীর শামীমাবাদ এলাকাল ছাত্রলীগ নেতা হোসাইন আহমদ সাগর গ্রুপের সাথে দীর্ঘদিন সম্পৃক্ত ছিলেন। ক’দিন পূর্বে তিনি মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম তুষার গ্রুপে যোগ দিয়েছিলেন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open