সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০ : ৫:০০ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

রাজনগরের যুবক ঢাকায় অপরহরণ : ‘টাকা পাইলাম ছেলেটাকে বিদায় দিলাম’

opohoron_bd24hourরাজনগর সংবাদদাতা : মৌলভীবাজারের রাজনগরে নাসিম আহমদ নারগিছ (৩০) নামে এক যুবক ঢাকায় অপহরণ হওয়ার ৭ দিন পর ১২ লাখ টাকায় মুক্তি পেয়েছেন। টাকা পেয়ে অপহরনকারীরা গত রবিবার বিকালে তাকে মৌলভীবাজারের বাসে তুলে দেয়। পরে মৌলভীবাজারের বাস স্টেন্ড থেকে পরিবারের লোকজন ওইদিন রাতেই তাকে গ্রহণ করেন। অপহরনের দিনগুলোয় তাকে বিভিন্ন সময় তাকে নির্যাতন করা হয়। এতে তিনি অসুস্ত হয়ে পড়েন। গতকাল সোমবার তাকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপহরনের শিকার নাসিম আহমদ নারগিছ পাঁচগাঁও ইউনিয়নের রক্তা (ইসলামপুর) গ্রামের মো. আকবাল হোসেনের ছেলে। এব্যাপারে নাসিমরে চাচা মো. মখলিছুর রহমান ঢাকার শাহবাগ থানায় গত ২৪ ডিসেম্বর সাধারণ ডায়রি করেন।
অপহরনের শিকার নাসিম আহমদ নারগিছ জানান, রাজনগর উপজেলার কাউয়াদীঘি হাওরের দনিয়া-বড়ইউড়ি জলমহাল নিয়ে হাইকোর্টে ৬১১/২০১৫ রিট পিটিশন চলমান রয়েছে। গত ২২ ডিসেম্বর ওই রিট পিটিশনের ওপর আদালত শুনানি শেষে রায় দেন। রায় শেষে নাসিম আহমদ আদালতের প্রধান ফটক দিয়ে রে হয়ে রাস্তা দিয়ে হাটছিলেন। এ সময় পিছন থেকে একটি মাইক্রোবাস তার পাশে থামার সঙ্গে সঙ্গে এক ব্যক্তি বের হয়ে তার (নাসিম আহমদ) কানে জুড়ে থাপ্পর দেয়। এতে তিনি কিছুটা দিগভ্রন্ত হলে ৪ জনের অপহরণকারীচক্র দ্রুত তাকে ওই গাড়িতে তুলে চোখ বেঁধে ফেলে এবং মারধর করে। এসময় তার সঙ্গে থাকা যাবতীয় কাগজপত্র, টাকা, মানিবেগ হাতিয়ে নেয়। নাসিম আহমদ জানান, মানিব্যাগের পকেটে স্টেন্ডার্ড ব্যাংক মৌলভীবাজার শাখার চলতি হিসাবের দুটি চেক তার পকেটে ছিল। অপহানকারী চক্র তাকে নিয়ে বেশ কিছু সময় গাড়ি চালিয়ে একটি ঘরে আটকে রাখে। তার বাড়ির মোবাইল ফোন নম্বর নিয়ে একটি মোবাইল নম্বর (০১৬২৯৯৬১৪৯০) থেকে খুঁদে বার্তা পাঠায়। খুঁেদ বার্তার অপহরনকারী চক্রটি মুক্তিপর হিসেবে ১২ লাখ টাকা দাবী করে। অন্যতায় তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। ওই নম্বরে নাসিমের পরিবার যোগাযোগ করে তার সঙ্গে কথা বলতে চান। পরে অপহরনের দুই দিনপর গত বৃহস্পতিবার (২৪. ডিসে.) তাকে দিয়ে বাড়িতে ফোন করায় চক্রটি। এসময় নাসিম ফোন করে বাবা ইকবাল হোসেনের কাছে টাকা দিয়ে ছাড়িয়ে নেয়ার অনুরোধ জানান। নাসিম আহমদের ভাই পাবলু জানান, অপহানকারী চক্রটি নাসিমের সঙ্গে থাকা চেক নিয়ে ওই একাউন্টে ১২ লাখ টাকা জমা দিতে বলে। তাদের কথা মতো গত রবিবার (২৭ ডিসেম্বর) নাসিমর চলতি হিসাব নম্বরে ১২ লাখ টাকা জমা দেন। পরে ওই দিন দুপুরে টাকা পেয়ে চক্রটি নাসিমকে সিলেট মুখি একটি বাসে তুলে দেয়। অপহরণকারী চক্রটি টাকা পেয়ে তার বাড়ির মোাইল নম্বরে একটি খুঁদে বার্তা পাঠায়। এতে লেখে ‘টাকা পাইলাম ছেলেটাকে বিদায় দিলাম’।
নাসিম আহমদ বলেন, অপহরণকারী চক্রটি তাকে হবিগঞ্জের একটি বাসে তুলে দেয়। ওই বাস তাকে শায়েস্তাগঞ্জ নামিয়ে দেয়। পরে তিনি সেখান থেকে এনা পরিহনের বাসে মৌলভীবাজার আসেন। পরে তার বাড়ির লোকজন তাকে সেখান থেকে নিয়ে আসেন।
রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল বাসেত বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। যেহেতু ঘটনা ঢাকার সেজন্য ওরা শুনেছি ঢাকার শাহবাগ থানায় সাধারণ ডায়রি করেছে। পরে শুনেছি ওকে নাকি শায়েস্তাগঞ্জ নামিয়ে দিয়েছে। বাড়িতে আসারপর কেউ থানায় জানায়নি।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open