শনিবার, অক্টোবর ২৪, ২০২০ : ৩:৫২ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

মৌলভীবাজারে আ.লীগ-বিএনপির মর্যাদার লড়াই

000_95825আবদুল বাছিত বাচ্চু মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার পৌরসভায় জয় পেতে বড় দুই দল আওয়মী লীগ ও বিএনপি অনেকটা মরিয়া হয়ে উঠেছে। প্রতিদিন নৌকা আর ধানের শীষের শত শত কর্মী-সমর্থক মাঠে চষে বেড়াচ্ছেন। নিজ নিজ পছন্দের প্রার্থীর বিজয় নিশ্চিত করতে তারা ভোটারদের নানা অনুনয়ন-বিনয় করছেন। আওয়ামী লীগ এই পৌরসভায় তাদের হারানো গৌরব পুনরুদ্ধার বিএনপি নিজেদের বিজয় ধরে রাখতে অনেকটা মরিয় হয়ে উঠেছে। এই মিশনে আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা প্রাক্তন প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য আজিজুর রহমান ও জেলা সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ এবং বিএনপির জেলা সভাপতি সাবেক এমপি এম নাসের রহমান ও সাধারণ সম্পাদক সাবেক তিন বারের মহিলা এমপি খালেদা রাব্বানী নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এমনকি দীর্ঘদিন পর দলীয় প্রার্থীর ভোটের জন্য নাসের রহমান বুধবার নিজে ছুটে আসেন খালেদা রাব্বানীর শাহ মোস্তফা সড়কের বাসায়। বুধবার সারাদিন তারা দলীয় প্রার্থীকে নিয়েও শহরে ব্যাপক গণসংযোগ করেন। এখানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থীর বিরামহীন লড়াইয়ে অন্য প্রার্থীদের আলোচনা নেই বললেই চলে। বিশেষ করে ধানের শীষ আর নৌকার যেন এক মহারণ প্রস্তুতি চলছে।সরজমিন পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের শতাধিক ভোটারের সাথে আলাপ করে দ্বমুখী লড়াইয়ের পূর্ণ আভাস পাওয়া গেল। বিশেষ করে পৌরসভার উত্তর-পূর্ব এলাকার নদী তীরে নৌকা আর দক্ষিণ-পশ্চিম এলাকায় সমতলে ধানের শীষের প্রার্থীকে এগিয়ে রাখছেন সাধারণ ভোটাররা। তবে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়েও অনেকের আবার সংশয় রয়েছে।অবশ্য মৌলভীবাজার পৌরসভা নির্বাচনের রিটানিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মাসুকুর রহমান শিকদার ঢাকা টাইমসের সাথে আলাপকালে নির্বাচনে যে কোন ধরনের গলযোগের আশংকা উড়িয়ে দিলেন। মৌলভীবাজার পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও নির্বিঘ্ন করতে যা যা করা দরকার তারা তাই করবেন বলেন আশ্বাস দেন।তিনি ঢাকা টাইমস টোয়েন্টি ফোর ডটকম কে বলেন, এখন পর্যন্ত কোন প্রার্থী বা তাদের কর্মী-সমর্থকরা আমাদের কাছে কোন অভিযোগ করেননি। তারপরও আমাদের লোকজন আচরণবিধি মেনে চলার ব্যাপারে কঠোর নজরদারি করছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের নির্দেশনা অনুযায়ী অভিযোগ পেলেই আমরা ব্যবস্থা নেব।সর্বশেষ হালনাগাদ ভোটার তালিকা অনুযায়ী এখানের ভোটার সংখ্যা ৩৮ হাজার ১৯১ জন। ২০১০ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী ফয়জুল করিম ময়ূন অন্তত ৭ হাজার ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন। আগামী ৩০ ডিসেম্বর দেশের অন্য পৌরসভার সাথে এই পৌরসভার ভোট অনুষ্ঠিত হেবে।চলতি বছর বর্তমান মেয়র ফয়জুল করিম ময়ূন নির্বাচন করছেন না। এখানে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ বিএনপি ওয়ার্কাসপাটিসহ বিভিন্ন দলের ৫ জন প্রার্থী লড়ছেন। তবে জাতীয় পার্টি, জামায়াত, এলডিপি, কৃষক শ্রমিক জনতালীগসহ অনেক দলই প্রার্থী দিতে পারেনি। এই ৫ প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রতীক নৌকার প্রার্থী ফজলুর রহমান জেলা যুবলীগের সভাপতি। তার রয়েছে ক্লিন ইমেজ। পাশাপাশি অপরদিকে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী অলিউর রহমান মৌলভীবাজার পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও একটি প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী পরিবারের সন্তান। ইতোপূর্বে তিনি দুই বার এই পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হন। বিএনপির মেয়র ফয়জুল করিম ময়ূন নির্বাচন না করায় দল তাকে মনোনয়ন দেয়। অন্য প্রার্থীদের মধ্যে ওর্য়াকাস পার্টির সাংবাদিক সৌমিত্র দেব (হাতুরি প্রতীক ),ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. মোস্তফা কামাল (হাতপাখা প্রতীক) ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপ)র সৈয়দ সুজাত আলী (আম প্রতীক) নিয়ে নির্বাচন করছেন। চলতি বছর প্রথমবারের মত দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হচ্ছে। এখানে সরকারি দল আওয়ামী লীগ ও বড় বিরোধী দল বিএনপির কোন বিদ্রোহী প্রার্থী মাঠে নেই। ফলে সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে নৌকা আর ধানের শীষের লড়াই জমে উঠছে। অন্য প্রার্থীরা পোস্টারিং ও গণসংযোগ করলেও মাঠে তেমন একটা সাড়া ফেলতে পারছে না। সোমবার সকালে শহরের শৈয়ারপুর, কাশিনাথ রোড, গীর্জা পাড়া, শান্তিবাগ, সেন্ট্রাল রোড ও বড়হাট এলাকার ভোটারা জানালেন এখানে নৌকার পাল্লাই ভারি। বিশেষ করে নৌকার প্রার্থীর ব্যক্তি ইমেজ আর দলীয় প্রতীককে গুরুত্ব দিয়েই তারা যুবলীগ সভাপতি ফজলুর রহমানকে এগিয়ে রাখছেন।কিন্তু এর সম্পূর্ণ বিপরীত চিত্র শহরের দক্ষিণ-পশ্চিমে। এখানের অর্ধশতাধিক ভোটারের দুই তৃতীয়াংশই মনে করেন সুষ্ঠু নির্বাচন হলে মৌলভীবাজারে ধানের শীষের বিজয়ী হবে। তাদের মতে, এই পৌর এলাকায় বিএনপি ও সমমনাদের ভোট বেশি। এছাড়া এখানে বিএনপিতে বিরাজমান কোন্দল এখন আর নেই। এছাড়া এই পৌরসভার ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডের মধ্যে ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী জালাল আহমেদ বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। অন্য ৮টি সাধারণ ওয়ার্ডে ২৮ জন কাউন্সিলর প্রার্থী এবং সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডে ৮ জন নারী প্রার্থী লড়ছেন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open