মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১, ২০২০ : ৯:২৮ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

শেখ হাসিনাকে হত্যার চেষ্টা, বাঁচিয়েছেন ভারতীয় সেনারা’

Hasian-Report_The-Economics-Timesডেস্ক রিপোর্ট : শেখ হাসিনা ও তার পরিবারের সকল সদস্যদের হত্যা করার ষড়যন্ত্র ১৯৭১ সালেই করা হয়েছিল। আজ থেকে ৪৩ বছর আগেই পাকিস্তানি সেনার গুলিতে জীবন সমাপ্ত হয়ে যেত বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর। শেখ হাসিনার প্রাণ বাঁচিয়ে দিয়েছিল ভারতীয় সেনার দল। স্বাধীনতা সংগ্রামের ৪৪ বসন্ত পেরিয়ে যাওয়ার পর সামনে এল এমনই এক রোমহর্ষক সত্য।
রোমহর্ষক এমন ঘটনা প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ানটাইমস এবং বাংলায় অনুবাদ করে তা প্রকাশ করা হলো। বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও হাসিনার পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের একজন একনিষ্ঠ সহায়তাকারী হাজী গোলাম মোর্শেদ বাংলাদেশের বিজয়ের ঘটনা স্মরণ করার সময় তিনি কিছু নতুন তথ্য উত্থাপন করেন। তিনি জানান, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর বাড়িতে ভারতীয় সৈন্যদের চার সদস্যের দল প্রহরায় থাকেন। যেখানে তার স্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেছা, হাসিনা এবং অন্য তিনটি শিশু সহ কারারুদ্ধ অবস্থায় ছিলেন।
ভারতীয় সেই চার সেনা সদস্য দলের নেতৃত্বে থাকা মেজর অশোককে গত দুই বছর আগে ‘বাংলাদেশের বন্ধু’ পুরষ্কারে ভূষিত করা হয়।
৮৫ বছরের মোর্শেদ জানান, ১৬ই ডিসেম্বর পাকিস্তানের আত্মসমর্পণের কথা পাকিস্তানী কিছু সেনা সদস্য জানতেন না। তারা বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী ও সন্তানদের বাড়ি চারপাশে ঘিরে রেখেছিলেন। যারা ঘিরে রেখেছিল তারা সকলে ভীত থাকলেও খুব রাগান্বিত ছিলেন। তারা কাউকে সেই বাড়ির আশেপাশে যেতে দিচ্ছিলেন না।
মেজর তারা ১৭ই ডিসেম্বর সেই বাড়িতে যাবার চেষ্টা করলে তাকে যেতে দেয়া হয় নি। তাকে পাকিস্তানী একজন সৈন্য বলেছিলেন, সে যদি সামনে যাবার চেষ্টা করে তাহলে তাকে গুলি করা হবে।
মোর্শেদ জানান, পাকিস্তানী সেই সৈন্যরা ভীত সন্ত্রস্ত এবং কোন দিক-নির্দেশনা বিহীন ছিলেন। তারা তাদের হারের খবর পাওয়ার পরও বঙ্গবন্ধুর পরিবারকে শেষ করে দিতে চেয়েছিলেন।
মোর্শেদকে পাকিস্তানী বাহিনী ২৫শে মার্চ রাতে গ্রেফতার করেছিলেন। তারপর তাকে ছেড়ে দেয়ার পর তিনি বঙ্গবন্ধুর বাড়িতে যেয়ে দেখেন তাদের বাড়ি পাকিস্তানী বাহিনী ঘিরে রেখেছে। তারপর ১৭ই ডিসেম্বর তিনি কাকরাইলের সার্কিট হাউজে যেয়ে ভারতীয় বাহিনীর নিকট এই তথ্য জানান। সেখানে তিনি মেজর তাঁরার সাথে পরিচিত হন।
তারপর, মেজর তারা সেখানে গিয়ে পাকিস্তানী সৈন্যদের আত্মসমর্পণের কথা জানান এবং তাদের বলেন যে, যোগাযোগের অভাবে তারা এই খবর পান নি। তারপর তারা সেখান থেকে চলে যান।তারা এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, সেদিন তিনি যখন বঙ্গবন্ধুর বাড়িতে গিয়েছিলেন তখন তাকে বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী আলিঙ্গন করে বলেছিলেন, ‘তুমি আমার পুত্র যাকে আল্লাহপাক জান্নাত থেকে আমার জন্য প্রেরণ করেছেন।’

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open