বৃহস্পতিবার, জুন ২৪, ২০২১ : ৯:০১ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

প্রতীক বরাদ্দে কথা রাখলো না ইসি

councilor_93643ডেস্ক রির্পোট: ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মতো পৌরসভা নির্বাচনেও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রার্থীদের জন্য একই ধরনের প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রার্থীদের জন্য নির্বাচনী প্রতীক রাখা হয়েছে গ্যাসের চুলা, কাঁচি, চকলেট, চুড়ি, পুতুল, ফ্রক, ভ্যানিটি ব্যাগ, মৌমাছি, আঙুর ও হারমোনিয়াম।ডিসিসি নির্বাচনে এ ধরনের প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার পর সমালোচনার মুখে পড়েছিল কমিশন। তখন তারা বলেছিলেন,ভবিষ্যতে এ ধরনের প্রতীক বরাদ্দ থেকে তারা বিরত থাকবে। কিন্তু পৌর নির্বাচনেও নারী প্রার্থীদের জন্য তারা একই ধরনের প্রতীক বরাদ্দ দিলেন।এদিকে ডিসিসি নির্বাচনের মতো পৌর নির্বাচনেও একই ধরনের প্রতীক বরাদ্দ দেয়ায় অনেকেই অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। বিষয়টিকে তারা দেখছেন নারীদের প্রতি পুরুষতান্ত্রিক মনোভাবের প্রকাশ হিসেবে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেক নারী কাউন্সিলর প্রার্থী। তাদের ভাষ্য, মেয়েরা বাস্তবিক অর্থে সব ধরনের কাজেই যুক্ত হচ্ছে, অর্থনীতিতে অবদান রাখছেন। কিন্তু নির্বাচন কমিশন কিন্তু এমন গৃহস্থালি সামগ্রীর প্রতীক দিয়ে নারীদের প্রতি পুরুষতান্ত্রিক মানসিকতারই পরিচয় দিলো।পটুয়াখালী পৌরসভার ৪, ৫, ৬ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর প্রার্থী জাহানারা রাজ্জাক ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে প্রতীক দেয়া গেলে ভালো হয়। তার মতে,নারীদের জন্য কম্পিউটার, ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন—এ ধরনের প্রতীক দিলে ভালো হতো।সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর প্রার্থী খোদেজা মান্নান জানান, এসব প্রতীকে নারীকে ছোটো করে দেখা হয়। নারীরা এখন পুরুষের মতো সব ধরনের কাজকর্ম করতে সক্ষম। তাহলে নির্বাচন কমিশন কেন এ রকম প্রতীক বরাদ্দ দেয়।জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশন সচিব সিরাজুল ইসলাম ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘এবার আমরা তাড়াহুড়া করে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছি। তাই বেশি কিছু পরিবর্তন করতে পারিনি। তবে যেসব প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে তা নিয়ে নারী প্রার্থীদের খুব বেশি আপত্তি থাকার কথা না। কারণ পুরুষরাও কিন্তু এখন চুলায় রান্না করে। তারাও কিন্তু চকলেট খায়,পুতুল নিয়ে খেলে। তবে এটি নিয়ে খুব বেশি বিতর্ক বা আপত্তি থাকলে ভবিষ্যতে বিবেচনা করা হবে।এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এখন আর এসব প্রতীক পরিবর্তন করার সুযোগ নেই। আর আমরা প্রতীক বরাদ্দ দেই বেশি পরিচিত জিনিসের বিবেচনায়। এমন প্রতীক দেয়ার পেছনে নারীকে ছোট করে দেখার কিছু নেই।  এ বিষয়ে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির নির্বাহী পরিচালক সালমা আলী বলেন, এই ধরনের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া নারী অধিকারের লঙ্ঘন। ভবিষ্যতে এর বিরুদ্ধে  আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।চলতি বছরের ২৮ এপ্রিল অনুষ্ঠিত ঢাকার দুটি ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও নারীদের জন্য বরাদ্দ দেয়া প্রতীক নিয়ে সমালোচনায় পড়তে হয় ইসিকে। রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় সে সময় কমিশন প্রতীক দেওয়ার ব্যাপারে ভবিষ্যতে বিবেচনা করার কথা বলেছিল।আগামী ৩০ ডিসেম্বর ২৩৪টি পৌরসভায় ভোট অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া শেষ হয়েছে। এখন যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে। সংরক্ষিত নারী আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন দুই হাজার ৬৬৮ জন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বেতন স্কেল ১০ গ্রেডে উন্নীতকরণের দাবি প্রধান শিক্ষকদের

ডেস্ক রিপোর্ট :: দ্বিতীয় শ্রেণির গেজেটেড (নন-ক্যাডার) প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন উভয় প্রধান শিক্ষকদের প্রবেশ পদে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open