সোমবার, মে ১৭, ২০২১ : ১০:০৫ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

পৃথক “বন্দুকযুদ্ধে” নিহত ৩

gunfight_93103ডেস্ক রিপোর্ট : যশোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে পৃথক পৃথক “বন্দুকযুদ্ধে” তিনজন নিহত হয়েছেন। যশোরের সদর উপজেলায় একজন, অভয়নগরে একজন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর উপজেলায় একজন নিহত হয়েছে।
মঙ্গলবার রাতের বিভিন্ন সময়ে এ ঘটনা ঘটে।
বেনাপোল (যশোর): যশোরে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে এক ‘ডাকাত’নিহত হয়েছে।মঙ্গলবার রাত পৌনে ৩টার দিকে সদর উপজেলার রহমতপুর এলাকায় যশোর-ঝিনাইদহ মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে।নিহত যুবকের (৩০) পরিচয় জানা যায়নি। এসময় পুলিশের তিন সদস্য আহত হন।ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক আবুল খায়ের জানান, ডাকাতরা সড়কে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন খবর পেয়ে তারা সেখানে গেলে রাস্তার উপর কাটা গাছ দেখতে পান। এসময় তাদের উপস্থিতি দেখে ডাকাতরা গুলি চালায়। পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে গুলিবিদ্ধ এক ডাকাত লুটিয়ে পড়ে এবং অন্যরা পালিয়ে যায়। এসময় পুলিশের তিন সদস্য আহত হন। গুলিবিদ্ধ ডাকাতকে নিয়ে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, একটি বড় দা, গাছ কাটার করাত ও কিছু দড়ি উদ্ধার করা হয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসক ইউসুফ আলী জানান, রাত সোয়া ৩টার দিকে পুলিশ জখম এক যুবককে নিয়ে আসে। হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়।মরদেহ হাসাপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।আহত ডিবি পুলিশ সদস্যরা হচ্ছেন- উপ-পরিদর্শক (এসআই) তোফায়েল আহমেদ, কনস্টেবল সিরাজুল ইসলাম ও আবু রাসেল। তাদেরকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে পুলিশ হাসপাতালে পাঠানো হয়।এদিকে যশোরের অভয়নগর উপজেলায় অধিপত্য বিস্তার নিয়ে চরমপন্থিদের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলি হয়েছে। এতে বিদ্যুৎ কুমার রায় (৩৫) নামে এক চরমপন্থি নেতা নিহত হয়েছেন।তিনি রানাগাতি গ্রামের সুকুমার রায়ের ছেলে।মঙ্গলবার রাত দুইটার দিকে উপজেলার রানাগাতি গ্রামের শ্মশানঘাট এলাকায় এ সংঘর্ষ হয়।অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ নাসির উদ্দিন জানান, মঙ্গলবার গভীর রাতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে রানাগাতি শ্মশানঘাট এলাকায় দু’দল চরমপন্থী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এসময় এক পক্ষের গুলিতে ওই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চরমপন্থি নেতা বিদ্যুৎ কুমার রায় নিহত হন।তিনি জানান, খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই বিদ্যুতের মরদেহ উদ্ধার করে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত বিদ্যুৎ সর্বহারা দলের নেতা ছিলেন। তিনি পুলিশের তালিকাভুক্ত চরমপন্থি নেতা। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও বিস্ফোরকসহ ৯টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে।চাঁপাইনবাবগঞ্জের সদর উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে “বন্দুকযুদ্ধে” একজন নিহত হয়েছেন। তার নাম তোফায়েল আহমেদ মিলন। এ সময় সেখান থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র, গুলি ও ককটেল উদ্ধার করা হয়েছে।মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে এসব ঘটনা ঘটে।র‌্যাব-৫ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার মোবাশ্বের রহিম জানান, মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে সন্ত্রাসীদের ধরতে র‌্যাবের একটি দল চকআলমপুর এলাকায় অভিযান চালাতে যায়। এসময় সন্ত্রাসীরা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। র‌্যাব পাল্টা গুলি ছুঁড়লে ২৫ মিনিট ধরে বন্দুক যুদ্ধ চলে। গোলাগুলি থেমে গেলে পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে অভিযান চালায় র‌্যাব। পরে একটি আম বাগান থেকে মিলনের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে মিলন কার গুলিতে মারা গেছে, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এসময় সেখান থেকে একটি পিস্তল, একটি রিভলবার, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও চারটি ককটেল উদ্ধার করে। মিলনের বিরুদ্ধে থানায় আটটি মামলা আছে বলে দাবি করেছে র‌্যাব।নিহত মিলনের মা ফিরোজা বেগম জানান, তার ছেলে ঢাকায় রাজমিস্ত্রির কাজে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে ১৩ দিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন। সকালে স্থানীয় লোকজনের কাছে শোনেন র‌্যাব মিলনকে গুলি করে মেরেছে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বেতন স্কেল ১০ গ্রেডে উন্নীতকরণের দাবি প্রধান শিক্ষকদের

ডেস্ক রিপোর্ট :: দ্বিতীয় শ্রেণির গেজেটেড (নন-ক্যাডার) প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রশিক্ষণবিহীন উভয় প্রধান শিক্ষকদের প্রবেশ পদে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open