শুক্রবার, এপ্রিল ১৬, ২০২১ : ৬:১২ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

যেভাবে কার্যকর হলো ফাঁসি

fashi 2_91757 সিলেট ভিউজ ডেস্ক : শনিবার রাত ১২টা ৫৫ মিনিটে একসঙ্গে ফাঁসির দড়িতে ঝুলেন দুই যুদ্ধাপরাধী বিএনপি নেতা সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ। দেশের ইতিহাসে এই প্রথম একমঞ্চে একই সঙ্গে দুইজনের ফাঁসি কার্যকর করা হলো। এর আগে এই মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর পাঁচ খুনির ফাঁসি পৃথক পৃথকভাবে কার্যকর করা হয়েছিল। কারাসূত্র জানায়, রাত সাড়ে আটটার দিকে সাকা চৌধুরী ও মুজাহিদকে গোসল করানো হয়। ৯ থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে দেওয়া হয় রাতের খাবার। খাবারের মেন্যু ছিল মুরগি, ডাল ও সবজি। সাকা খেলেও মুজাহিদ খাননি। রাত ৯টা ৩৫ মিনিটে শেষবারের মতো দেখা করতে কারাগারে ঢোকেন সাকার পরিবারের সদস্যরা। তারা অবস্থান করেন ১০টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত। সাকার পরিবার বের হলে ঢোকেন মুজাহিদের পরিবারের সদস্যরা। তারা অবস্থান করেন সোয়া ১২টা পর্যন্ত। পরিবারের সদস্যরা বিদায়ের পর সাড়ে ১২টার দিকে তওবা পড়ানো হয়। তওবা পড়ান কারাগার পুকুর পাড় সংলগ্ন মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মনির হোসেন খান। সাকা তওবা পড়লেও মুজাহিদ বলেন, আমাকে তওবা পড়াতে হবে না। আমি নিজেই তওবা পড়েছি। এরপর ১২টা ৩৬ মিনিটে কনডেম সেল থেকে যমটুপি পরিয়ে দু’জনকে একসঙ্গে ফাঁসির মঞ্চে নেওয়া হয়। এসময় তাদের মধ্যে কোনো রিঅ্যাকশন ছিল না বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। পরে তাদের দাঁড় করানো হয় একই মঞ্চে পাশাপাশি। মঞ্চটি বেশ পুরনো। এ মঞ্চেই কার্যকর হয় বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের ফাঁসি। পরে একই সময়ে একই সঙ্গে দু’জনের ফাঁসি কার্যকর করেন জল্লাদ শাজাহান ও রাজু। মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের পর মুজাহিদের মরদেহ আগে তোলা হয়। পরে তোলা হয় সাকার মরদেহ। ঢাকা জেলা সিভিল সার্জন ডা. মালিক মৃধা দুইজনের মৃত্যু নিশ্চিত করেন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open