সোমবার, নভেম্বর ৩০, ২০২০ : ৪:৫৭ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

স্বামী হত্যার বিচার দেখে যেতে পারলেন না আসমা কিবরিয়া

42820সিলেট ভিউজ টুয়েন্টিফোর ডট কম: সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া পত্নী স্বনামধন্য চিত্রশিল্পী আসমা কিবরিয়া আর নেই। সোমবার সকালে তিনি মৃত্যুবরণ করছেন। আসমা দেখে যেতে পারলেন না তার স্বামী কিবরিয়া হত্যাকান্ডের চলমান বিচারের রায়। আর সামান্য ক’দিন হাতে পেলে হয়তো তিনি তার স্বামীর খুনীদের শাস্তি নিজ চোখে দেখে যেতে পারতেন। নিয়তি তাকে সেই সুযোগ দিলো না।সোমবার সকাল ৯টা ১০ মিনিটের সময় রাজধানী ঢাকার একটি হাসপাতালে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে শাহ এ এ এম এস কিবরিয়ার সহধর্মীনি আসমার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। তিনি ছেলে-মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও শুভাকাঙ্খি রেখে গেছেন।২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি সদর উপজেলার বৈদ্যের বাজারে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভা শেষে ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের ছোড়া গ্রেনেড হামলায় নিহত হন সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া ও তার ভাতিজা শাহ মঞ্জুর হুদাসহ পাঁচজন। আহত হন বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এমপি অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহিরসহ ৪৩ জন। এ ঘটনায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমপি অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল মজিদ খান বাদী হয়ে সদর থানায় হত্যা এবং বিস্ফোরক আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। হত্যা মামলাটির বিচার চলছে সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে।দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার কাজ চলমান  থাকলেও স্বামী হত্যাকান্ডের বিচারের রায় দেখার সৌভাগ্য হলো না সহধর্মীনি আসমা কিবরিয়া। মামলার সর্বশেষ অবস্থা অনুযায়ী এর বিচারকার্য সম্পন্ন হতে খুব বেশিদিন বাকি নেই।বিস্ফোরক মামলা বিচারের জন্য হবিগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে দায়রা জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়েছে। হবিগঞ্জের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এসএম হুমায়ূন কবীর মামলাটি দায়রা আদালতে পাঠানোর আদেশ দেন।আদালত সূত্রে জানা যায়, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিলেট সিআইডির সিনিয়র এএসপি মেহেরুন্নেছা পারুল অধিকতর তদন্ত শেষে চলতি বছরের ৫ আগস্ট আদালতে সম্পূরক চার্জশিট দেন। চার্জশিটে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, বেগম খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, সিলেটের সাময়িক বরখাস্তকৃত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও হবিগঞ্জের বরখাস্তকৃত মেয়র জি কে গউছসহ কিবরিয়া হত্যা মামলার ৩৫ আসামীকে আসামিভুক্ত করা হয়।এর মাঝে চার্জশিটভূক্ত এক আসামী মারা গেছেন এবং অপর দুইজনের নাম ও ঠিকানা ভুল থাকায় তাদেরকে অব্যাহতির আবেদন জানানো হয়। বাকি ৩২ আসামির মধ্যে ১৫ জন কারাগারে, ৯ জন পলাতক ও আটজন উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছেন। আগামী ১২ নভেম্বর মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। জামিনে থাকা আটজনের মধ্যে সাতজন সর্বশেষ তারিখে আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open