মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১ : ১০:২০ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

মেসিদের কাঁদিয়ে প্রথমবারের মতো চিলির শিরোপা জয়

সিলেটভিউজ আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আর্জেন্টিনাকে টাইব্রেকারে হারিয়ে প্রথমবারের মতো কোপা আমেরিকার শিরোপা জয় করেছে চিলি। এর ফলে আরও একটি ফাইনাল হতাশার হয়ে থাকল  লিওনেল মেসির কাছে।কোপা আমেরিকার ফাইনালে মুখোমুখি প্রতিবেশি চিরবৈরী দুই দেশ। রাজনীতি-অর্থনীতি সবদিকেই আর্জেন্টিনার সঙ্গে শীতল সম্পর্ক চিলির। এমনই এক পরিস্থিতিতে বিশ্বসেরা ফুটবলার মেসিরা মুখোমুখি হলো স্বাগতিক চিলির। খেলার প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকে। তবে খেলার প্রথম থেকেই প্রভাব বিস্তার করে খেলতে শুরু করে চিলিয়ানরা। বল পজিশনের পরিমান আর্জেন্টিনার ৪২, আর ৫৮ ভাগ চিলির। ১২০ মিনিটের খেলা শেষে যেটা দাঁড়াল চিলির ৫৭ ভাগ আর আর্জেন্টিনার ৪৩ ভাগ। খেলার ২৫তম মিনিটে ফিটনেসই হারিয়ে ফেলেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। তার পরিবর্তে মাঠে নামেন এজেকুয়েল লাভেজ্জি।দ্বিতীয়ার্ধেও অবস্থার উন্নতি করতে পারেনি আর্জেন্টিনা। আগুয়েরোকে তুলে হিগুয়াইনকে নামিয়েও লাভ হয়নি। বরং, চিলির নিয়মিত চাপের মুখে থাকতে হয়েছে আর্জেন্টিনার রক্ষণভাগকে। মেসিকে খেলতে হয়েছে অনেক নীচে নেমে এসে। দুই একটি বল বানিয়ে দিলেও সেগুলো ফিনিশিং দেওয়ার মত কাজ করতে পারেন নি অন্যরা। বরং, মেসিকে যেন পুরো প্যাকেটবন্দী করে রেখেছিল চিলি।নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা গোলশূন্য ড্র থাকার পর গড়ালো অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে। উল্লেখ্য, টুর্নামেন্টের নক আউটে অতিরিক্ত ৩০ মিনিটের নিয়ম না থাকলেও ফাইনালে রাখা হয়েছে এ ব্যবস্থা। অতিরিক্ত ৩০ মিনিটেও কোন গোল হলো না। এ অংশে সবচেয়ে ভালো সুযোগটি পেয়েছিলেন সানচেজ। ১০৫ মিনিটে কাউন্টার অ্যাটাকে মাঝ মাঠ থেকে একাই বল নিয়ে আসেন। হ্যাভিয়ের মাচেরানো চলে আসায় শেষ পর্যন্ত লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন সানচেজ। একেবারে শেষ মিনিটে পর পর দুবার হিগুয়াইন এবং লাভেজ্জি গোলের সুযোগ নষ্ট করেন।১২০ মিনিটের খেলায়ও কেউ কাউকে গোল দিতে পারলো না। সুতরাং, চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণে খেলাটি গড়াল টাইব্রেকারে। প্রথম শট নেন চিলির ম্যাতিয়াস ফার্নান্দেজ। এ শটে গোল। আর্জেন্টিনার হয়ে প্রথম শট নেন লিওনেল মেসি। তার শট ঝাঁপিয়ে পড়েও রক্ষা করতে পারলেন না ব্রাভো। ১-১।দ্বিতীয় শট নিতে আসেন আরতুরো ভিদাল। তার শট হাতে লাগালেও ফেরাতে পারলেন না সার্জিও রোমেরো। আর্জেন্টিনার হয়ে দ্বিতীয় শট নিতে আসেন গঞ্জালো হিগুয়াইন। কিন্তু বারের অনেক ওপর দিয়ে মেরে দেন তিনি। ২-১।চিলির তৃতীয় শট নেন চার্লস আরাঙ্গুইজ। এটাও গোল। আর্জেন্টিনার তৃতীয় শট নেন এভার বানেগা। কিন্তু ক্লদিও ব্রাভো ঝাঁপিয়ে পড়ে ফিরিয়ে দেন তাকে। ৩-১। চিলির হয়ে চতুর্থ শট নিতে আসেন আলেক্সিজ সানচেজ। এই শটে গোল হলেই জয়। সার্জিও রোমেরোকে পুরোপুরি বোকা বানালেন সানচেজ। আলতো টোকায় বল জড়িয়ে দিলেন জালে।সঙ্গে সঙ্গেই উল্লাসে মেতে ওঠে পুরো সান্তিয়াগো, পুরো চিলি। ৯৯ বছরের কোপার ইতিহাসে শিরোপা জিততে না পারার আক্ষেপ ঘোচানোর উল্লাস। এই প্রথম বড় কোন শিরোপা ঘরে তুলল আলেক্সিজ সানচেজরা। আর আরও একটি ফাইনালে উঠে শিরোপা বঞ্চিত থাকতে হলো মেসিদের।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

আর্জেন্টিনায় সবাইকে ছাড়িয়ে মেসি

ক্রীড়া ডেস্ক :  এখনো ‘কালি’টা পুরোপুরি মুছে যায়নি। তিন নাকি হট ফর ক্লাব, নট ফর …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open