শনিবার, ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২১ : ৭:২৬ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

পানির দামে বিক্রি হচ্ছে ছাতক-দোয়ারার লিচু

সুনামগঞ্জের ছাতক-দোয়ারায় লিচু চাষ দিন দিন বৃদ্ধি পেলেও চলতি মৌসুমে লিচুর ভাল ফলন না হওয়াতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে চাষিরা হতাশায় ভূগছেন। আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় ১৫ হাজার লিচু গাছের মধ্যে প্রায় ১ হাজার গাছে কোন মুকুল আসেনি। যতটুকু মুকুল এসেছিল তার মধ্যে শতকরা ৬০ ভাগ লিচু বিভিন্ন কারণে ঝরে পড়েছে। এতে লিচুর উৎপাদন নেমে এসেছে শতকরা ৪০ ভাগে। ফলে ছাতক- দোয়ারাবাজার উপজেলার ১৫-২০টি গ্রামের লিচু চাষিরা আর্থিকভাবে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন।

বাগান মালিকরা জানান- এবছর প্রচন্ড খরায় সেচের অভাব, কালবৈশাখী ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে শতকরা ৫০ ভাগ লিচু নষ্ট হয়েছে। বাগানগুলোতে বিদ্যুৎ না থাকায় বাদুর ও চামচিকা জাতীয় পাখি নষ্ট করেছে আরো ১০ ভাগ লিচু। প্রতি বছর জ্যৈষ্ঠ মাসে এলাকার লিচু চাষিরা আনন্দে সময় অতিবাহিত করলেও এ মৌসুমে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র।

চাষিরা প্রতি বছর লিচু চাষ করে লাভবান হয়ে থাকেন। গেলো বছর শুধু মানিকপুরের লিচু কোটি টাকায় বিক্রি হয়েছে। এ বছর বিক্রি নেমে এসেছে অর্ধেকের চেয়েও আরও কম। লিচু চাষিরা উৎপাদন, পরিবহন ও বিক্রি বিষয়ে নানা সমস্যায় ভূগছেন।

প্রতি বছর স্থানীয় চৌমুহনী বাজারে সকালে লিচুর হাট বসে। এ বছর উৎপাদন কম হওয়াতে বাজারের দৃশ্য অন্য রকম। পরিবহন সমস্যার কারণে পাইকার (বেপারীরা) না আসাতে পানির দামে লিচু বিক্রি হচ্ছে। চাষিরা নিরুপায় হয়ে প্রতি হাজার লিচু বিক্রি করছেন ১১শ থেকে ১২শ টাকায়। প্রাকৃতিক বিপর্যয়, যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ না থাকায় ও পাখির উপদ্রবের কারণে লিচু উৎপাদন ব্যাহত হয়েছে।

জানা যায়- ছাতক-দোয়রার টিলা এলাকার মাটি লিচু চাষের জন্য অত্যন্ত উপযোগি। মধু মাসের রসালো টসটসে মিষ্টি ফল লিচু উৎপাদনের উপর নির্ভর করে দুই উপজেলার প্রায় ২ হাজার পরিবার। এ অঞ্চলের ফরমালিনমুক্ত লিচুর কদর সিলেটের বাজারে অন্য লিচুর চেয়ে বেশি।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সিলেটে আদালতপাড়া থেকে আসামির পলায়ন নিয়ে তোলপাড়

দুই শ’ পিস ইয়াবাসহ গত মঙ্গলবার র‌্যাব-৯ এর একটি দল আটক করেছিল তাকে। এরপর থানায় …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open