মঙ্গলবার, মার্চ ৯, ২০২১ : ৭:২৪ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

সিলেটে জামিন নিতে ব্যস্ত বিএনপি নেতারা, নতুন আতঙ্ক চার্জশিট

সিলেটভিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম: পুলিশের ধরপাকড় কমেছে। আত্মগোপন থেকে বেরিয়ে এসেছেন নেতাকর্মীরা। আপাতত বড় রকমের কোন রাজনৈতিক কর্মসূচি নেই। দেশের পরিস্থিতিও হয়ে ওঠছে স্থিতিশীল। এ অবস্থায় স্বস্তি চান সিলেট বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তাই বিগত দিনে আন্দোলন-সংগ্রাম করতে গিয়ে তারা যেসব মামলার আসামী হয়েছিলেন সেগুলো থেকে জামিন নিতে ব্যস্ত। যারা সিলেট থেকে জামিন না পাওয়ার আশঙ্কা করছেন তারা ছুটছেন হাইকোর্টে। ইতোমধ্যে যেসব নেতা তাদের উপর দায়েরকৃত মামলায় জামিন নিয়েছেন তারা নগরীতে প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করলেও আতঙ্ক পিছু ছাড়ছে না। নতুন করে তাদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চার্জশিট আতঙ্ক। আন্দোলনকালীন সময়ে অজ্ঞাত আসামীদের দিয়ে যেসব মামলা দায়ের হয়েছিল সেসব মামলায় নতুন করে তাদের নাম অর্ন্তভূক্ত হওয়ার আতঙ্কে ভূগছেন তারা।

বিএনপি দলীয় সূত্রে জানা যায়- গত ৫ জানুয়ারি থেকে ২০ দলীয় জোটের ডাকা লাগাতার হরতাল ও অবরোধ কর্মসূচি পালন করতে গিয়ে সিলেটে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অন্তত ৭০টি মামলা হয়েছে। এদের বেশিরভাগই দ্রুত বিচার ও বিস্ফোরক আইনে রেকর্ড হয়েছে। এসব মামলায় এজহারনামীয় আসামী হয়েছেন দেড় সহস্রাধিক। এর মধ্যে জেল খেটে জামিনে বের হয়েছেন প্রায় আড়াইশত নেতাকর্মী। অনেকে উচ্চ আদালত থেকেও জামিন নিয়েছেন।

সম্প্রতি ২০ দলীয় জোট তাদের কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেয়ার পর দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি স্থিতিশীল হয়ে ওঠে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও বিএনপি নেতাকর্মীদের প্রতি কিছুটা নমনীয় মনোভাব দেখাতে থাকে। এ অবস্থায় সিলেটে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাদের উপর দায়েরকৃত মামলাগুলোতে জামিন নিতে ব্যস্ত হয়ে ওঠেন। কেউ সিলেটের বিভিন্ন আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করছেন। জামিন নামঞ্জুর হয়ে কোন নেতাকর্মী জেলে গেলে হাইকোট থেকে তাদের জামিনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

তবে জামিন নিয়েও স্বস্তিতে থাকতে পারছেন না বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ এবং রাজপথের সক্রিয় নেতাকর্মীরা। ৫ জানুয়ারি পরবর্তী সময়ে যেসব নাশকতার ঘটনায় অজ্ঞাতনামা আসামীদের দিয়ে মামলা হয়েছিল সেসব মামলার চার্জশিট আদালতে জমা দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। ওইসব মামলায় নতুন করে আসামী হওয়ার শঙ্কায় ভূগছেন নেতাকর্মীরা।

এ ব্যাপারে সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহমদ বলেন- রাজপথের আন্দোলন বন্ধ করতে সিলেটে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের শীর্ষ ও সক্রিয় নেতাকর্মীদের একের পর এক মামলায় আসামী করা হচ্ছে। আন্দোলনের সময় যেসব মামলায় আসামী অজ্ঞাত দেখানো হয়েছে সেসব মামলায় নিরাপরাধ নেতাকর্মীদের আসামী করার পাঁয়তারা চলছে। ফলে বিভিন্ন মামলায় জামিনে থাকা নেতাকর্মীরা স্বস্তিতে থাকতে পারছেন না।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সিলেটে আদালতপাড়া থেকে আসামির পলায়ন নিয়ে তোলপাড়

দুই শ’ পিস ইয়াবাসহ গত মঙ্গলবার র‌্যাব-৯ এর একটি দল আটক করেছিল তাকে। এরপর থানায় …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open