শনিবার, নভেম্বর ২৮, ২০২০ : ৭:০৪ অপরাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

বিশ্বনাথে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৪

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি: বিশ্বনাথে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অনন্ত ৪ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। শুক্রবার বিকেলে উপজেলা সদরের লতিফ উল্লা মার্কেটের সামেন উপজেলার পূর্ব চান্দসির কাপন গ্রামের বদরুল ইসলাম-সুমিন আহমদ ও পূর্ব চান্দসির কাপন সিরাজ-পশ্চিম চান্দশির কাপন গ্রামের জুবেল-জুয়েল লোকজনের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।
আহতরা হলেন-বদরুল ইসলাম, সুমিন আহমদ, সিরাজ মিয়া ও জুয়েল। আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহন করেছেন বলে জানাগেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব বিরোধের জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার পুরাণ বাজারস্থ আকমল ম্যানশনের ২য় তলাস্থ একটি সেলুনে বদরুল ও তার সহপাঠি জনির মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। পরবর্তিতে উভয়ের পক্ষে লোকজন ও মুরব্বীদের হস্তক্ষেপে তা আপোষ-মিমাংশায় ওই রাতেই বিষয়টি শেষ করা হয়। এর একপর্যায়ে তাদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বদরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, গত মঙ্গলবার (পবিত্র শবেবরাত) রাতে আকমল ম্যানশনের ৩য় তলায় তারা (জনি ও তার সহযোগিরা) মিলে সারা রাত গাফলা খেলা ও মদপান করে। তাদেরকে এসব বন্ধ করে ইবাদতিতে যাওয়ার কথা বলে ছিলাম। একারণে সে আমাকে গালিগালাজ করে আসছিল। এরপর বৃহস্পতিবার রাতে হামলা করে। মুরব্বীরা বিষয়টি আপোষে শেষ করে দেওয়ার পরও শুক্রবার বিকেল অস্ত্র-সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আমাদের ওপর হামলা করেছে।

গাফলা খেলা ও মদপানের বিষয়টি অস্বীকার করে জনি আহমদ বলেন, তার (বদরুল) অভিযোগ সম্পূর্ন মিথ্যা। সে কয়েকদিন ধরে আমাকে গালিগালাজ করে আসছে। এরপর বৃহস্পতিবার বাসার সামনে এসে আমার ওপর হামলা করেছে। শুক্রবার সংঘর্ষের বিষয়টি আমার জানানেই বলে তিনি জানান।

সিরাজ মিয়া বলেন, বদরুল ও জনির মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। বিষয়টি আমরা কয়েকজন বৃহস্পতিবার রাতে মিমাংসা করে দেয়ার চেষ্টা করি। এরই মধ্যে জনিকে বদরুল মারধর করে। এরপর বদরুল আমাদের অশ্লীনভাষায় গালিগালাজ করে। শুক্রবার বিকেলে এর কারণ জানতে চাইলে সে আমাদের ওপর হামলার চেষ্টা করে। এতে আমরা প্রতিহত করি।

মদপানের ব্যাপারে আকমল ম্যানশনের সত্ত্বাধিকারী লুৎফুর রহমান বলেন, আমাদের মার্কেটে কখনই এধরণের অনৈতিক কাজ হয়নি। বদরুল নিজে বাঁচার জন্য বিষয়টিকে ভিন্নখ্যাতে প্রবাহিত করার চেষ্ঠা করছে। সে মার্কেটে থাকা সেলুনে ভাংচুর করেছে তিনি অভিযোগ করেন।
বিশ্বনাথ থানার ওসি (তদন্ত) মাসুদুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সিলেটে আদালতপাড়া থেকে আসামির পলায়ন নিয়ে তোলপাড়

দুই শ’ পিস ইয়াবাসহ গত মঙ্গলবার র‌্যাব-৯ এর একটি দল আটক করেছিল তাকে। এরপর থানায় …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open