বৃহস্পতিবার, মার্চ ৪, ২০২১ : ৬:১৮ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

৭ দিনের রিমান্ডশেষে সোমবার আদালতে হাজির করা হবে

সিলেট নগরীতে ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশকে (৩১) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় আটক ফটো সাংবাদিক ইদ্রিস আলীর (২৪) ৭ দিনের রিমান্ড সোমবার শেষ হচ্ছে। ওইদিনই তাকে সিলেট আদালতে হাজির করা হবে জানিয়েছেন সিআইডি’র অর্গানাইজড ক্রাইমের বিশেষ সুপার আব্দুল্লাহেল বাকি। তিনি জানান, ইদ্রিস কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য যাছাই-বাছাই করা হচ্ছে। তার কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য ক্রস চেকের জন্য সিআইডি’র অর্গানাইজড ক্রাইমের একটি টিম শিগরিগই সিলেট সফর করবে।

সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ইদ্রিস আলীকে ঢাকার সিআইডি কার্যালয়ে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।
এদিকে, সিলেটের প্রগতিশীল রাজনৈতিক দলগুলো শুক্রবার সন্ধ্যায় এক সভায় অনন্ত বিজয় দাশের খুনিদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়েছে।
গত সোমবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক আরমান আলী স্থানীয় ফটোসাংবাদিক ইদ্রিস আলীকে গ্রেপ্তারের পর আদালত হাজির করে ১৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আদালত তার ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে, অনন্ত হত্যাকান্ডের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকার পাশাপাশি বেশ কিছু আলামতের ব্যাপারে ইদ্রিসের কাছে জানতে চাওয়া হয় । এ ছাড়া, সিলেটের দৈনিক পত্রিকা সবুজ সিলেটে প্রকাশিত অনন্ত বিজয়ের হত্যার পর তাৎক্ষণিক একটি ছবির ব্যাপারেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় ইদ্রিসকে। ইদ্রিস দাবি করেছেন, ছবিটি ফেসবুক থেকে নেয়া। তবে, তদন্তকারীরা এই তথ্যের কোনো ভিত্তি পায়নি। আর এ কারণেই সন্দেহের আওতায় আনা হয় ইদ্রিসকে। সূত্র জানিয়েছে, গ্রেফতারের আগে ইদ্রিস আলীর ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকার তথ্য পাওয়া যায়। পরে তথ্য মিলেছে হত্যাকান্ডের কয়েক মিনিট আগেই ঘটনাস্থলের ‘খুব কাছে’ উপস্থিত ছিলেন ইদ্রিস। তিনি প্রথমে ঘটনাস্থলে যাওয়ার কথা অস্বীকার করলেও এখন বলছেন, পরে তিনি গেছেন। প্রথম দিকে ভয়ে ইদ্রিস এই তথ্য প্রকাশ করেননি বলে তদন্তকারীদের জানিয়েছেন।
ওই সূত্র জানায়, ইদ্রিস আলী ‘সবুজ সিলেট’  পত্রিকায় গত ছয় মাস ধরে নিজস্ব ফটোসাংবাদিক হিসেবে কাজ করতেন। ইদ্রিস সিলেট সদর উপজেলার বিমানবন্দর থানার খাদিমপাড়া ইউনিয়নের সাহেব বাজার এলাকার ফতেহগড় গ্রামের মোঃ ইলিয়াছ আলীর ছেলে। বাবা ইলিয়াস আলী বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত। গত ৩০ এপ্রিল তিনি বিয়ে করেন।
গত ১২ মে সকালে সিলেট নগরীর সুবিদবাজার এলাকায় বনকলাপাড়া পুকুরের পাশে চার দুর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে অনন্ত বিজয় দাশকে হত্যা করে। এ ঘটনায় সিলেট বিমানবন্দর থানার হত্যা মামলা দায়ের হলেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। ১৪ দিনের মাথায় গত ২৫ মে সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইমের কাছে হত্যা মামলাটির তদন্তভার দেয়া হয়। সোমবার গভীর রাতে সিলেট মহানগর পুলিশের একটি গাড়িতে ইদ্রিসকে ঢাকার সিআইডি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া  হয়। সেখানে মঙ্গলবার থেকে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open