শনিবার, নভেম্বর ২৮, ২০২০ : ৪:১৩ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

সিলেটের প্রথম ফুটওভার ব্রিজের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে

সিলেটভিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম : দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে সিলেটের প্রথম ফুটওভার ব্রিজের কাজ। নানান পরিকল্পনার আর সমালোচনার মুখে ২১ মে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ব্রিজ স্থাপনের কাজের উদ্বোধন করেন। সিলেটের ব্যস্ততম এলাকা নগরীর বন্দবাজারের কোর্ট পয়েন্টে নির্মিত হচ্ছে এই ফুটওভার ব্রিজ। সংশ্লিষ্টরা জানান, সিলেটে সুরমা নদীর ওপর ব্রিটিশ ঐতিহ্যের কিনব্রিজ নির্মিত হয়েছে লোহা দিয়ে। সেই নির্মাণশৈলীর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ফুটওভার ব্রিজটি তৈরি করা হচ্ছে। যানজট নিরসন ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সিলেটে এই প্রথম কোনো ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ হচ্ছে। সিলেট সিটি করপোরেশন ফুটওভার ব্রিজটি নির্মাণ কাজ তদারকি করছে।

প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের প্রথম ফুটওভার ব্রিজ হওয়ায় এটি দৃষ্টিনন্দন করে নির্মাণের দিকটিও প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। ব্রিজে সব মিলিয়ে ছয়টি সিঁড়ি থাকছে। ছয় দিক থেকেই ব্যবহার করতে পারবেন পথচারীরা। কোর্ট পয়েন্টের ট্রাফিক মোড় হবে এর প্রধান ফটক। কালেক্টরেট মসজিদের অংশ, সেন্ট্রাল মার্কেটের একাংশ ও মধুবন সুপার মার্কেটের সামনের রাস্তার অংশে থাকবে সেতুর ভিত্তি।

জানা গেছে, ২০০৮ সালের সিলেট-১ আসন থেকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী আবুল মাল আব্দুল মুহিত নির্বাচনী ইশতেহারে এটি ছিল। কিন্তু ওই নির্বাচনে জয়ী হয়ে পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকলেও সেটি বাস্তবায়ন হয়নি। টানা দ্বিতীয় মেয়াদে অর্থমন্ত্রীর চেয়ারে বসার পর আগের প্রতিশ্র“তি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছেন আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এটির অর্থায়নও হচ্ছে অর্থমন্ত্রীর বিশেষ তহবিল থেকে। ফুটওয়ার ব্রিজ নিয়ে নগরীর মধুবন মার্কেটের ব্যবসায়ীরা আপত্তি জানালেও তা আমলে নেয়নি সিটি কর্পোরেশেন। ব্যবসায়ীদের দাবি, ফুটওয়ার ব্রিজ নির্মাণ হলে মধুবন মার্কেটে ক্রেতাদের প্রবেশ রুদ্ধ হবে। একই সাথে কোর্টপয়েন্টের স্বাভাবিক সৌন্দর্য নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করে ফুটওয়ার ব্রিজ নির্মাণ পুনঃর্বিবেচনার আবেদন তারা জানিয়েছেন। এর আগে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী বরাবর তারা স্মারকলিপিও দিয়েছেন।

সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব বলেন, সিলেটের জন্য নতুন প্রকল্প এটি। নতুন ও প্রথম হওয়ায় কাজের দিকে সবার নজর রয়েছে। এর সুফল দেখে নগরে আরো কয়েকটি স্থানে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি জানান।

সিলেট সিটি করপোরেশন সূত্র জানিয়েছে, কোর্ট পয়েন্ট ছাড়াও ক্বিন ব্রিজ মোড়ে আরও একটি ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। এটির অর্থায়ন করবে সিলেট জেলা পরিষদ। ওই ফুটওভার ব্রিজটি নির্মাণেরও প্রস্তুতি চলছে। ২০১৪ সালে সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় ৪টি স্থান ও প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে বিশেষ বরাদ্দ দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর মধ্যে কোর্ট পয়েন্টের ফুটওভার ব্রিজ প্রকল্পও ছিল। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে, ১ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। বাংলাদেশ ইস্পাত অ্যান্ড প্রকৌশল করপোরেশন তার নিজস্ব কোম্পানি দিয়ে ‘চিটাগাং ড্রাই ডক লিমিটেড’র মাধ্যমে কাজটি বাস্তবায়ন করছে।

বর্তমানে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে ব্রিজের কাজ। ভিত্তির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। লোহাড় সিঁড়ি ও অন্যান্য অংশ চট্টগ্রাম থেকে তৈরি করে নিয়ে আসায় জুনের মধ্যেই পুরো ওভারব্রিজ স্থাপনের কাজ শেষ হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open