শনিবার, নভেম্বর ২৮, ২০২০ : ৮:১৩ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

১৪ জন পুলিশ সদস্যকে সিলেটে জেলা পুলিশে বদলি

সলিটেভউিজ টুয়ন্টেফিোর ডটকম : সাজ্জাদ ইবনে রায়হানরে সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তনিি প্রত্যাহাররে বষিয় অস্বীকার করে জানান, ১৪ জন পুলশি সদস্যকে সলিটেে জলো পুলশিে বদলি করা হয়ছে।ে এটা তাদরে প্রশাসনকি র্কযাক্রমরে অংশ বলওে মন্তব্য করনে তনি।িতবে একটি নর্ভিরযোগ্য সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতবিার কয়কেজন তরুণ হবগিঞ্জ পুলশি লাইন এলাকার একটি দোকানে বাংলাদশে-ভারতরে ক্রকিটে খলো দখেছলিনে। এ সময় গোপায়া গ্রামরে আক্তার ময়িার সঙ্গে হবগিঞ্জ পুলশি লাইনরে কনস্টবেল সোহাগরে তুচ্ছ বষিয় নয়িে কথা-কাটাকাটি হয়। পরদনি শুক্রবার শরফিুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি বষিয়টি মীমাংসা করে দনে।তবে ওই মীমাংসা মনেে না নয়িে কনস্টবেল সোহাগ শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টার দকিে পুলশি লাইনরে পরর্দিশক জামাল উদ্দনিরে নতেৃত্বে ৮-১০ জন পুলশি সদস্যকে নয়িে শরফিুল ইসলামরে দোকানে আক্তার ময়িার খোঁজ করনে। তাকে না পয়েে তার ছোট ভাই আরফিুল ইসলামকে মারধর করে গাড়তিে তুলে নয়িে যায়।এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে এলাকাবাসী হবগিঞ্জ-ধুলয়িাখাল সড়ক প্রায় তনি ঘণ্টা অবরোধ করে রাখনে। খবর পয়েে হবগিঞ্জরে অতরিক্তি পুলশি সুপার শহীদুল ইসলাম, সহকারী পুলশি সুপার সাজ্জাদ ইবনে রায়হান ও হবগিঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত র্কমর্কতা (ওস)ি নাজমিুদ্দনি ঘটনাস্থলে যান। পরে তারা পুলশি লাইনে ধরে নয়িে যাওয়া আরফিুলকে উদ্ধার করনে। পাশাপাশি ওই ঘটনায় দোষীদরে বরিুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নয়োর আশ্বাস দলিে বক্ষিুব্ধরা অবরোধ প্রত্যাহার করে নয়ে।ওই ঘটনার একদনি পর শনবিার আরফিুল ইসলামকে মারধর করায় জড়তি ১৪ জন পুলশি সদস্যকেে প্রত্যাহার করা হয়। এ ঘটনার সত্যতা নশ্চিতি করে হবগিঞ্জরে সহকারী পুলশি সুপার সাজ্জাদ ইবনে রায়হান বলনে, ‘একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়ছেলি।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

বিশ্বনাথে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি মেম্বার গ্রেফতার

সিলেটের বিশ্বনাথে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে উপজেলার দৌলতপুর ইউপির ১নং ওয়ার্ডে মেম্বার …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open