মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১, ২০২০ : ৩:১৩ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

‘দোলার বাসায় প্রথমে যায় দুলাভাই, এরপর রুবেল’

রবীন্দ্রনাথের ছোট গল্পের মতো ‘শেষ হইয়াও হইল না শেষ’—এর মতো অবস্থা। বলছিলাম হ্যাপি-রুবেলের মামলা প্রসঙ্গ নিয়ে। মাঝে বেশ কিছুদিন আলোচনার বাইরে থাকলেও আবারও শিরোনাম হতে যাচ্ছে এ মামলা। হ্যাপির দায়ের করা অভিযোগ থেকে রুবেলকে অব্যাহতির সুপারিশ করে পুলিশের চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর শুনানি হবে ১৭ মে রবিবার। ঢাকার ৫নং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক তানজিলা ইসলাম এ দিন ধার্য করেন।  
এ বিষয়ে হ্যাপির আইনজীবী তুহিন হাওলাদার বলেন, ওই দিন পুলিশের পক্ষ থেকে দাখিল করা চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ওপর নারাজি দিব আমরা। যে প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে তা গ্রহণযোগ্য নয়। সেখানে জানানো হয়েছে, সাক্ষী পাওয়া যায়নি। অথচ সাক্ষীর একটি তালিকা আদালতে ইতিমধ্যে পেশ করা হয়েছে। তারা বাদীর কাছে সাক্ষীর জন্য কোনোরকম তালিকাও চায়নি। তাই এ বিষয়ে রবিবার নারাজি দাখিল করব।
এদিকে হ্যাপির মুখেও শোনা গেল একই কথা। হ্যাপি বলেন, মাঝখানে মামলা থেকে ইউটার্ন নিয়ে যে ভুল করেছিলাম তা ঠিক হয়নি। সেটা ছিল আবেগের বশে। আমি যখন বলেছিলাম মামলা তুলে নেব তখন অনেকেই সাধুবাদ জানিয়েছিল, অথচ ওই সিদ্ধান্তের পরে আমাকে দেখে নেবে বলে হুমকি প্রদান করে রুবেল। এছাড়া বিয়ে নিয়ে যে খেলা শুরু করেছে সেটারও সমুচিত জবাব দিতে চাই।  
সমুচিত জবাব, সেটা আবার কিভাবে? এ প্রশ্নের উত্তরে অনেকটাই ক্ষোভের সুরে হ্যাপি বলেন, তাকে দাঁতভাঙা জবাব দিব। আমি যখন মিডিয়াতে বললাম দোলা নামের একটি মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক হয়েছে রুবেলের তখন অনেকেই আমাকে দোষারোপ শুরু করলেন, তারা  বললেন, আমি কেন নতুন করে রুবেলের বিরুদ্ধে লাগলাম। আমার কষ্ট একটাই যাকে আমি ভালোবাসি সে কেনো এরকম একটা মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক করতে যাচ্ছে।  
ওই মেয়ের সঙ্গে তো রুবেলের কোনো সম্পর্ক নেই। এমনটা শোনার সঙ্গে সঙ্গে প্রতি উত্তরে হ্যাপি বলেন, ওই মেয়ের সঙ্গে শুধু সম্পর্ক নয় আকদও সেরে ফেলেছে রুবেল। এটা আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে পারি। বিশ্বকাপ শেষে যখন রুবেল দেশে ফেরে তখনই তাদের এ সম্পর্ক তরান্বিত হয়। হ্যাপি আরও বলেন, দোলার বাসায় প্রথমে যায় তার দুলাভাই, এরপর রুবেল। দুলাভাই দেখার পর রুবেলকে নিয়ে যায়। অথচ তারাই এখন বিষয়টাকে অস্বীকার করছে। যেহেতু আকদ হয়ে গেছে সেহেতু এই মেয়েকে প্রকাশ্যে আনতেই হবে রুবেলকে। অথচ সে এখন অস্বীকার করছে। যখন দোলাকে সামনে নিয়ে আসবে তখন রুবেল তার মুখটি কোথায় লুকাবে। যাই হোক সময়ই সেটা বলে দিবে। আপাতত মামলা নিয়ে চিন্তা ভাবনা করছি। আমাকে নিয়ে রুবেল যেভাবে ছিনিমিনি খেলেছে তার দাঁতভাঙা জবাব আদালতের মাধ্যমে দেওয়া হবে।
এছাড়া অভিযোগের সুরে হ্যাপি বলেন, শুনানির দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, কারা যেন ফোন করে আমাকে নানা আজেবাজে কথা বলছেন। মামলা তুলে নিতে আমাকে নানা প্রলোভনও দেখিয়েছেন। কিন্তু আমি হুমকিকে পরোয়া করছি না।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

অন্তরঙ্গ দৃশ্য অভিনয়ে কেন আপত্তি ঐশ্বরিয়ার?

ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ইনিংসে খুব সতর্কভাবে চরিত্র বেছে নিচ্ছেন বলিউড অভিনেত্রী ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন। রাই সুন্দরী …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open