বৃহস্পতিবার, মার্চ ৪, ২০২১ : ৩:২৩ পূর্বাহ্ন
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদঃ

স্ত্রীকে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়লেন সালাউদ্দিন

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদের সাথে দেখা হয়েছে তার স্ত্রী হাসিনা আহমেদের। সোমবার রাত ৮টার দিকে দীর্ঘ প্রায দু’মাস পর তাদের দেখা হয়। এসময় হাসিনাকে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন সালাউদ্দিন। হাসিনা আহমেদও নিজেকে সংবরণ করতে পারেননি। উভয়ই বেশ কয়েক মিনিট কান্নায় কথা বলতে পারেননি। এদিকে গণমাধ্যমের কাছে করা বিএনপির সহ দফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনির মন্তব্যের সাথে মিলছে না বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিনের বক্তব্য।

সালাউদ্দিন দেশে নয়, চিকিৎসার জন্য উন্নত কোনো দেশে যেতে চান বলে গত কয়েকদিন ধরে জনি যে মন্তব্য করে আসছিলেন, গতকাল সোমবার সালাউদ্দিনের বক্তব্যে তা অসার প্রমাণিত হয়েছে।

সালাউদ্দিন নিজে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বলেছেন, তার দেশ বাংলাদেশ। তিনি বাংলাদেশেই ফিরতে চান। এছাড়াও সালাউদ্দিনকে অপহরণের পর যেদিন শিলংয়ে নিয়ে যাওয়া হয়, সেদিন প্রায ৪ ঘন্টা লং ড্রাইভের কথা বলেছিলেন জনি। কিন্তু গতকাল সালাউদ্দিন জানিয়েছেন, তাকে প্রায় ১২-১৪ ঘন্টার লং ড্রাইভ শেষে শিলংয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। এদিকে গতকাল সোমবার সালাউদ্দিনের কিডনির সিটি স্ক্যান ও রক্ত পরীক্ষা করা হয়।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে কলকাতা থেকে ভারতের জেট এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে ডাউকি রওয়ানা দেন হাসিনা আহমেদ। পৌণে ৩টার দিকে তিনি শিলংয়ে উদ্দেশ্যে ডাউকি থেকে রওয়ানা দেন। সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে শিলংয়ের হোটেল সেন্টার পয়েন্টে ওঠেন হাসিনা। সন্ধ্যা পৌণে ৭টার দিকে তিনি শিলং পুলিশ সুপারের সাথে দেখা করেন। রাত পৌণে ৮টার দিকে তিনি হাসপাতালে সালাউদ্দিনের সাথে দেখা করার অনুমতি পান। ৮টা ৫ মিনিটে বোন জামাই মাহবুব চৌধুরীকে সাথে নিয়ে হাসিনা আহমেদ সালাউদ্দিনের সাথে দেখা করতে হাসপাতালে প্রবেশ করেন। প্রায় ৩৬ মিনিট তিনি সালাউদ্দিনের সাথে কথা বলেন। হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ভারত সরকার সালাউদ্দিনকে আশ্রয় এবং সুচিকিৎসা দেয়ায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন হাসিনা আহমেদ। তিনি জানান, সালাউদ্দিনের সুচিকিৎসার জন্য বাংলাদেশ-ভারত ছাড়া অন্য কোনো উন্নত দেশে নিয়ে যাওয়ার জন্য আদালতে আবেদন করবেন।

হাসিনা আহমেদ জানান, তিনি ক্লান্ত। তবু রাতেই (সোমবার দিবাগত) আইনজীবীদের সাথে কথা বলবেন। আজ মঙ্গলবার সকালে ফের সালাউদ্দিনের সাথে দেখা করে আনুষ্ঠানিকভাবে গোটা বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করবেন তিনি।

এদিকে হাসিনার বোন জামাই মাহবুব চৌধুরী জানান, হাসিনা আহমেদ সালাউদ্দিনের সাথে দেখা করতে যাবার পর সালাউদ্দিন স্ত্রীকে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। হাসিনা আহমেদও নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি। তারা উভয়ই বেশ কয়েক মিনিট কান্নায় বাকরুদ্ধ হয়ে ছিলেন।

এদিকে গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কিডনির সিটি স্ক্যানের জন্য সালাউদ্দিনকে শিলং সিভিল হাসপাতালের ইউটিপি ওয়ার্ড থেকে ল্যাব ভবনে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশ প্রহরায় হেঁটে হেঁটে ল্যাব ভবনে যাওয়ার সময় সালাউদ্দিন সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন। তিনি জানান, ৬১ দিন বন্দী থাকা অবস্থায় মানসিক যন্ত্রণায় ছিলেন তিনি। তার বাঁচা-মরা ছিল অনিশ্চয়তার মধ্যে। পরিবারের কাছে ফিরে যেতে পারবেন কিনা, সেই চিন্তা ছিল সর্বক্ষণ। যেদিন তাকে শিলংয়ে নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়, সেদিন প্রায় ১২-১৪ ঘন্টা লং ড্রাইভ করে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। ওই সময় গাড়িতে থাকা অবস্থায় তার হাত-পা ও চোখ বাঁধা ছিল।

সালাউদ্দিন জানান, তাকে গাড়ি থেকে হাত-পা ও চোখ খুলে ছেড়ে দেয়ার পর তিনি স্থানীয় লোকদের জিজ্ঞেস করে জানতে পারেন যে তাকে শিলংয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। পরে তিনি পুলিশে খবর দিতে স্থানীয়দের লোকদের অনুরোধ করেন। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে প্রথমে মানসিক রোগী ভেবে মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু পরবর্তীতে হাসপাতালে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে এবং স্ত্রী হাসিনা আহমেদের সাথে সালাউদ্দিনের কথা বলার পর তার আসল পরিচয় জানতে পারে পুলিশ। পরে তাকে সিভিল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সালাউদ্দিন জানান, তিনি প্রচন্ড অসুস্থ। কিডনির সমস্যায় খুব বেশি ভোগছেন তিনি।

সাংবাদিকদের সাথে কথা বলার সময় সালাউদ্দিনের চোখে-মুখে দেশে ফেরার আকুতি ছিল। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ আমার দেশ। আমি আমার দেশে ফিরে যেতে চাই।’ ভারতের আইনের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে তিনি বলেন, ‘ভারতে আমার প্রবেশ অনিচ্ছাকৃত।’ স্ত্রী হাসিনার সাথে দেখা হওয়ার পর তার বিরুদ্ধে অনুপ্রবেশের দায়ে করা মামলা ও দেশে ফেরার ব্যাপারে আইনী প্রক্রিয়া শুরু করবেন বলেও জানান সালাউদ্দিন।

সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমি দেশে কোনো ক্রাইম করিনি। আমি সাজাপ্রাপ্ত আসামি নই। তারপরও ইন্টারপোলের মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। এটা ঠিক হয়নি।’

এদিকে দুপুর আড়াইটার দিকে সালাউদ্দিনের রক্ত পরীক্ষা করা হয়। সালাউদ্দিনের চিকিৎসার তত্ত¡াবধানে থাকা ডা. জিকে গোস্বামী জানান, এখন সালাউদ্দিনের হার্টে কোনো সমস্যা নেই। তার শারীরিক অবস্থা ভালো। তার কিডনিতে সমস্যার কথা তিনি বলেছেন। এজন্য কিডনির পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

এছাড়াও নিম্নের সংবাদগুলো দেখতে পারেন...

সেই রাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীর যৌন হয়রানির অভিযোগ

আত্মহত্যা’ করা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির সাবেক …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Open